অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

মারিউপোলের অবশিষ্ট ঘাঁটিগুলোতে হামলা না চালাতে সামরিক বাহিনীকে পুতিনের নির্দেশ


মস্কোর ক্রেমলিনে এক ভিডিওকনফারেন্সের মাধ্যমে রাশিয়ার লৌহ ও ইস্পাত শিল্পের পরিস্থিতি বিষয়ে এক বৈঠকে আলোচনা করছেন রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন, ২০ এপ্রিল ২০২২।

রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন ইউক্রেনের মারিউপোল শহরের ইস্পাত কারখানায় হামলা না চালাতে বৃহস্পতিবার তার বাহিনীকে নির্দেশ দিয়েছেন। ঐ কারখানায় ইউক্রেনের বাহিনীর অবশিষ্ট সদস্যরা ঘাঁটি গেড়ে অবস্থান নিয়েছে।

টেলিভিশনে সম্প্রচারিত এক বৈঠকে পুতিন তার প্রতিরক্ষামন্ত্রী সার্গেই শোইগু-কে বলেন যে, রাশিয়ার বাহিনীর ঐ কারখানাটি এমনভাবে অবরোধ করা উচিৎ “যাতে সেখানে একটি মাছিও যেতে না পারে”। সেখানে হামলা চালানোর পরিকল্পনায় অগ্রসর হলে তা অযথা রুশ সৈন্যদের হুমকিতে ফেলবে বলেও মনে করেন পুতিন।

পুতিনকে শোইগু জানান যে, অ্যাজভস্টল কারখানায় ইউক্রেনের প্রায় ২,০০০ সৈন্য অবস্থান করছে। তিনি বলেন যে, গুরুত্বপূর্ণ বন্দরনগরী মারিউপোলের বাকি অংশ “স্বাধীন” করা হয়েছে।

অপরদিকে, বেসামরিক মানুষ ও আহত সৈন্যদেরকে কারখানা থেকে সরিয়ে নিতে দেওয়ার জন্য, রাশিয়ার কাছে মানবিক করিডোরের দাবি জানিয়েছেন ইউক্রেনের উপপ্রধানমন্ত্রী ইরিনা ভেরেশচুক।

অনলাইনে করা এক পোস্টে বৃহস্পতিবার ভেরেশচুক বলেন, “সেখানে প্রায় ১,০০০ জন বেসামরিক মানুষ ও ৫০০ জন আহত সৈনিক রয়েছেন। তাদের সবাইকেই আজকে অ্যাজভস্টল থেকে সরিয়ে আনতে হবে।”

ভেরেশচুক আরও জানান যে, বুধবার চারটি বাস মারিউপোল থেকে বেসামরিক মানুষজনকে সরিয়ে আনতে পেরেছে।

ধারণা করা হচ্ছে যে, মারিউপোলে ১,০০,০০০ এরও বেশি ইউক্রেনীয় আটকা পড়ে আছে। ২৪ ফেব্রুয়ারি রাশিয়া দেশটি আক্রমণের পূর্বে সেখানে ৪,০০,০০০ মানুষ বসবাস করত।

পানামায় এক কূটনৈতিক সম্মেলনে বুধবার যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিংকেন বলেন, “সেখানকার পরিস্থিতি সত্যিই ভয়াবহ।” তিনি বিশেষভাবে উল্লেখ করেন যে, মারিউপোলের মানুষজনের পালিয়ে যাওয়ার জন্য মানবিক করিডোরের প্রচেষ্টাগুলো “খুব দ্রুতই ভেস্তে গিয়েছে।”

XS
SM
MD
LG