অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

বিমানে সহযাত্রীকে মাইক টাইসনের ঘুষি মারার ঘটনার তদন্ত করছে পুলিশ


মাইক টাইসন

কর্তৃপক্ষ বৃহস্পতিবার সাবেক হেভিওয়েট চ্যাম্পিয়ন মাইক টাইসনকে ঘিরে এক ঘটনার তদন্ত করছিলেন। রেকর্ড করা এক ভিডিওতে দেখা যায়, সান ফ্রান্সিসকো আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে মাইক টাইসন বিমানের প্রথম শ্রেণীতে তার এক সহযাত্রীকে বিমানের ভেতরেই ঘুষি মারছেন।

ভিডিওতে দেখা যায় টাইসন তার আসনের পিছনে ঝুঁকে অজ্ঞাতপরিচয় এক ব্যক্তির মাথায় বারবার আঘাত করছেন, যার ফলে রক্ত বেরিয়ে আসে। ফুটেজটি টিএমজি প্রথম শেয়ার করে। তারা জানায় ফ্লোরিডার উদ্দেশ্যে যাত্রা করা জেট ব্লু এর একটি বিমানে সেটি ধারণ করা হয়েছিল।

টাইসনের প্রতিনিধিরা দ্য অ্যাসোসিয়েটেড প্রেসকে এক ইমেইলে বলে, “দুর্ভাগ্যবশত, এক ফ্লাইটে একজন আক্রমণাত্মক ব্যক্তির সাথে মি. টাইসনের একটি ঘটনা ঘটে, যেই ব্যক্তি তাকে হয়রানি করছিলেন এবং তার দিকে বোতল ছুড়ে মেরেছিলেন, যখন কিনা তিনি [টাইসন] নিজ আসনে বসে ছিলেন।”

ভিডিওতে দেখা যায়, হাতাহাতির আগে ঐ ব্যক্তি টাইসনের আসনের পিছনে দাড়িয়ে হাত নাড়াচ্ছেন এবং অঙ্গভঙ্গি করে কথা বলছেন, যখন কিনা এই সাবেক বক্সার চুপচাপ নিজ আসনে বসে ছিলেন।


বৃহস্পতিবার পুলিশ এক বিবৃতিতে বলে, “কর্মকর্তারা এসে ঘটনায় জড়িত দুইজন সন্দেহভাজন ব্যক্তিকে আটক করে। একজনকে ঘটনাস্থলেই, জীবনের জন্য হুমকিস্বরূপ নয়, এমন আঘাতের জন্য চিকিৎসা প্রদান করা হয়। ঐ ব্যক্তি ঘটনা সম্পর্কে ন্যূনতম তথ্য প্রদান করেন এবং পুলিশের তদন্তে আর কোন সহযোগিতা করতে অস্বীকৃতি জানান।”

বিবৃতিতে আরও জানানো হয় যে, পরবর্তী তদন্ত সাপেক্ষে তাদের দুইজনকেই ছেড়ে দেওয়া হয়েছে।

স্যারা বার্চফিল্ড নামের ঐ ফ্লাইটের আরেক যাত্রী বলেন যে, টাইসন যাকে ঘুষি মেরেছেন ঐ যাত্রীকে তিনি এয়ারপোর্টের একটি মদ্যপানের দোকানে দেখেছিলেন। তখন ঐ ব্যক্তি অনেক জোরে কথা বলছিলেন এবং তাকে ঝগড়াটে মেজাজের মনে হচ্ছিল।

সান ফ্রান্সিসকো পুলিশ বলে যে, ভিডিওটি সান মাটেও কাউন্টি শেরিফের দফতরকে প্রদান করা হয়েছে। বিমানবন্দরটি ঐ শেরিফের দফতরের এলাকাধীন।

শেরিফের কর্মকর্তারা বলেন, “ঘটনাটি তদন্তাধীন থাকায় আমরা কোন তথ্য প্রদান করছি না।

আরও বিস্তারিত তথ্যের অনুরোধ জানিয়ে করা এক ইমেইলের তাৎক্ষণিক কোন জবাব দেয়নি জেটব্লু।

XS
SM
MD
LG