অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

মারিউপোলের ইস্পাত কারখানায় রাশিয়ার বিমান হামলা


অ্যাজভস্টল ইস্পাত কারখানা এবং অ্যাজভ শিপইয়ার্ড-এর ধ্বংসপ্রাপ্ত ফটক থেকে ধোঁয়ার কুণ্ডলী উঠছে। ১৯ এপ্রিল ২০২২ তারিখে মারিউপোল নগর পরিষদের প্রদত্ত একটি ফুটেজ থেকে ছবিটি নেওয়া হয়েছে। (ছবিটি মারিউপোল নগর পরিষদের সৌজন্যে/এএফপি)

ইউক্রেনের দক্ষিণাঞ্চলের অবরুদ্ধ মারিউপোল বন্দরনগরীর অ্যাজভস্টল ইস্পাত কারখানায় রাশিয়া বিমান হামলা চালিয়েছে বলে রবিবার ইউক্রেনের কর্মকর্তারা জানান।

গত সপ্তাহে রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন কারখানাটিকে কঠোরভাবে অবরোধ করার আদেশ দিয়েছিলেন। ঐ কারখানায় সম্ভবত হাজার হাজার ইউক্রেনীয় যোদ্ধা ও বেসামরিক মানুষ অবস্থান করছেন। তাদের থেকে কারখানার নিয়ন্ত্রণ নিতে রুশ বাহিনীকে বেগ পেতে হচ্ছে।

একই সময়ে, আন্তর্জাতিক রেড ক্রস কমিটি (আইসিআরসি) রবিবার এক বিবৃতিতে জানায় যে, তারা “মারিউপোলের পরিস্থিতি নিয়ে গভীরভাবে শঙ্কিত, যেখানে মানুষজন সহায়তার গুরুতর চাহিদায় রয়েছে।” আইসিআরসি বলে, “অ্যাজভস্টল কারখানা এলাকাসহ শহরটি থেকে হাজার হাজার বেসামরিক মানুষ ও শত শত আহতদের স্বেচ্ছায় ও নিরাপদে সরিয়ে আনার জন্য, অবিলম্বে ও অবাধ মানবিক প্রবেশপথ অত্যন্ত প্রয়োজনীয়।”

রবিবার ইউক্রেনে অর্থোডক্স ইস্টার সানডে উদযাপনের দিনেই কারখানাটিতে বোমাবরর্ষণ করা হয়। এদিকে, ইউক্রেনের রাজধানী কিয়েভে যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিংকেন এবং প্রতিরক্ষামন্ত্রী লয়েড অস্টিন-এর সাথে সাক্ষাতের কথা রয়েছে ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেন্সকির।

জেলেন্সকি বলেন যে, সফরটির ফলাফল হিসেবে ইউক্রেন “নির্দিষ্ট কিছু জিনিস এবং নির্দিষ্ট কিছু অস্ত্র আশা করছে।” ২৪ ফেব্রুয়ারি রাশিয়া ইউক্রেন আক্রমণের পর থেকে এটিই যুক্তরাষ্ট্রের কোন সরকারী কর্মকর্তার প্রথম আনুষ্ঠানিক ইউক্রেন সফর।

সফরের বিষয়টি যুক্তরাষ্ট্রের কর্মকর্তারা এখনও নিশ্চিত করেননি।

অপরদিকে, রাশিয়া রবিবার কৃষ্ণ সাগরের তীরবর্তী ওডেসা বন্দরনগরীতে ছয়টি ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ করেছে। এর ফলে, অন্তত পাঁচজন নিহত হয়েছেন বলে ইউক্রেনের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন। রাশিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রক জানায় যে, তাদের সৈন্যরা ওডেসার একটি গুদামে ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালিয়েছে। ঐ গুদামে ইউক্রেনের সৈন্যদেরকে যুক্তরাষ্ট্র ও ইউরোপীয় দেশগুলোর পাঠানো অস্ত্র মজুদ ছিল।

ইউক্রেনের কর্মকর্তারা শনিবার বলেছেন যে, ইউক্রেনে রাশিয়ার ২১,৬০০ সৈন্য মারা গিয়েছে।

“যুদ্ধের অবসান ঘটাতে” রাশিয়ার নেতা ভ্লাদিমির পুতিনের সাথে একটি বৈঠকের জন্য আবার আহ্বান জানিয়েছেন প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেন্সকি।

XS
SM
MD
LG