অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

বাংলাদেশের চাঁদপুর জেলার দুই গ্রামে রবিবার ঈদ উদযাপন


বাংলাদেশের চাঁদপুর জেলার দুই গ্রামে ঈদ উদযাপন
বাংলাদেশের চাঁদপুর জেলার দুই গ্রামে ঈদ উদযাপন

বাংলাদেশের চাঁদপুর জেলার হাজীগঞ্জের সাদ্রা ও শমেসপুর গ্রামের মানুষ রবিবার (১ মে) ধর্মীয় ভাব গাম্ভির্যের মধ্য দিয়ে পবিত্র ঈদুল ফিতর উদযাপন করছেন। আফগানিস্তান, নিজার ও মালিতেও শনিবার শাওয়াল মাসের চাঁদ দেখা যাওয়ায় তারা রবিবার ঈদ উদযাপন করেন।

রবিবার সকাল সাড়ে ১০টায় হাজীগঞ্জের সাদ্রা দরবার শরিফ মাদরাসা মাঠে ঈদের প্রধান জামাত অনুষ্ঠিত হয়। রবিবার সকালে সরেজমিনে হাজীগঞ্জের সাদ্রা দরবার শরিফ মাদরাসা মাঠে গেলে দেখা যায়, সাদ্রা হামিদিয়া ফাজিল (ডিগ্রি) মাদরাসা মাঠে ঈদের জামাতে অংশ নেওয়ার জন্য মুসল্লিরা আসতে শুরু করেছেন। সকাল সাড়ে ১০টায় এখানে ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হয়। সাদ্রা দরবার শরিফের পীর মুফতি আল্লামা যাকারিয়া চৌধুরী আল মাদানী জামাতে ইমামতি করেন।

এ বিষয়ে সাদ্রা দরবারের বড় পীরজাদা পীর ড. মুফতি বাকী বিল্লাহ মিশকাত চৌধুরী বলেন, “হানাফি, মালেকি ও হাম্বলি— এ তিন মাজহাবের চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হচ্ছে, পৃথিবীর পশ্চিম প্রান্তেও যদি চাঁদ দেখা যায় আর সে সংবাদ যদি নির্ভরযোগ্য মাধ্যমে পৃথিবীর পূর্ব প্রান্তেও পৌঁছায়, তাহলে পূর্ব প্রান্তের মুসলমানদের জন্য রোজা রাখা ফরজ এবং ঈদ করা ওয়াজিব”।

তিনি বলেন, “শনিবার আফগানিস্তান, নিজার ও মালিতে চাঁদ দেখা গেছে। ওই সংবাদ নির্ভরযোগ্য ভিত্তিতে প্রাপ্ত হয়ে আজ আমরা ঈদুল ফিতর উদযাপন করছি। পাশাপাশি ঢাকার সদরঘাটস্থ খানকা, আসকোনা এবং পটুয়াখালীর বদরপুর দরবার শরিফেও ঈদের জামাত হয়েছে”।

স্থানীয় মুসল্লি মাওলানা ফারুক আহমেদ, বজলুর রহমান ও অন্যরা জানান, সাদ্রা ও শমেসপুর গ্রামের লোকজন এক দিন আগে থেকে অর্থাৎ গত ২ এপ্রিল থেকে রোজা পালন শুরু করেন।

XS
SM
MD
LG