অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

প্রতিবাদ সত্ত্বেও হিজাব সংক্রান্ত ডিক্রি কার্যকর করবে তালিবান


কাবুলে একটি রাস্তার পাশে কয়েকজন হিজাব পরা নারী দাঁড়িয়ে আছেন। ৭ মে ২০২২।

তালিবানের পুণ্যের প্রচার এবং অধার্মিকতা প্রতিরোধ মন্ত্রকের প্রাদেশিক কর্মকর্তাদের জন্য তিন দিনব্যাপী একটি সাম্প্রতিক সমাবেশে শুধুমাত্র পুরুষ সদস্যরাই উপস্থিত ছিলেন। তবে তাদের বৈঠক এবং গৃহীত সিদ্ধান্তগুলো ছিল আফগানিস্তানের নারীদের পোশাক নিয়ে।

তালিবানের একজন মুখপাত্র ইনামুল্লাহ সামাঙ্গানি ভয়েস অফ আমেরিকাকে বলেন, “কীভাবে হিজাব সংক্রান্ত ডিক্রিটি মসৃণভাবে কার্যকর করা যায়” তা নিয়ে আলোচনা করেন কর্মকর্তারা।

তালিবানের নতুন এই আদেশে সকল প্রাপ্তবয়স্ক নারীদের শুধুমাত্র চোখ ও হাত ছাড়া সারা শরীর ও মুখমণ্ডল ঢেকে রাখার কথা বলা হয়েছে।

সামাঙ্গানি আরও বলেন, ইসলামি আমিরাত কখনোই আফগান নারীদের ওপর কোনো বিশেষ ধরনের হিজাব চাপিয়ে দেয়নি। তবে তাদের প্রতি নিজ নিজ এলাকায় যেসব হিজাব প্রচলিত সেগুলো পরিধান অব্যাহত রাখতে আহ্বান জানানো হয়েছে্”।

মন্ত্রকের প্রতিনিধি—যাদেরকে আনুষ্ঠানিকভাবে ধর্মীয় বিচারপতি বলা হয়—বলেন, নির্দেশ পালনে ব্যর্থ হলে নারীদের বিরুদ্ধে সহিংসতামূলক ব্যবস্থা নেওয়া হবে না, তবে এর পরিবর্তে তাদের পরিবারের যেকোনো একজন পুরুষ সদস্যের তিন দিনের কারাবাসসহ জরিমানা করা হবে৷

তালিবানের এই ডিক্রি বিশ্ব অঙ্গনে ব্যাপক সমালোচনার জন্ম দিয়েছে।

জাতিসংঘের মহাসচিব আন্তোনিও গুতেরেস ৭ মে টুইট করেছেন, “তালিবানের আজকের এই ঘোষণা, যাতে নারীদের জনসমক্ষে মুখ ঢেকে রাখতে বাধ্য করা এবং শুধুমাত্র প্রয়োজনে বাড়ি থেকে বের হতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে, তা নিয়ে আমি ভীষণ উদ্বিগ্ন”।

মঙ্গলবার (১০ মে) কাবুলে নারীদের একটি ছোট দলও এই ডিক্রির বিরুদ্ধে বিক্ষোভ করেছেন এবং বলেছেন, নারীরা কী পরবে তার সিদ্ধান্ত পুরুষেরা একা নিতে পারেন না।

XS
SM
MD
LG