অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

শ্রীলঙ্কার নতুন প্রধানমন্ত্রী হলেন বিক্রমাসিংহে


কলম্বোয় তার দফতরে গণমাধ্যম প্রতিনিধি এবং সুশীল সমাজের সদস্যদের সাথে অনুষ্ঠিত এক বৈঠকে শ্রীলঙ্কার তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী রানিল বিক্রমাসিংহে, ৩০ অক্টোবর ২০১৯। বৃহস্পতিবার বিক্রমাসিংহকে আবারও সরকারপ্রধান হিসেবে নিযুক্ত করা হয়েছে। (ফাইল ফটো)

রাজনৈতিক ও অর্থনৈতিক সংকটে জর্জরিত শ্রীলঙ্কায় স্থিতিশীলতা ফিরিয়ে আনার প্রচেষ্টায়, দ্বীপরাষ্ট্রটিতে এর আগে পাঁচ দফায় প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করা রানিল বিক্রমাসিংহকে বৃহস্পতিবার আবারও প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্বভার প্রদান করা হয়।

প্রেসিডেন্টের দফতরে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে প্রেসিডেন্ট গোতাবায়া রাজাপাকসের কাছে শপথ গ্রহণ করেন বিক্রমাসিংহে।

প্রেসিডেন্টের ভাই, মাহিন্দা রাজাপাকসে সোমবার প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব থেকে পদত্যাগ করেন। এর আগে, তার সমর্থকরা শান্তিপূর্ণভাবে প্রতিবাদরত সরকার বিরোধীদের উপর সহিংস হামলা চালিয়েছিল। তার পদত্যাগের ফলে মন্ত্রীসভা আপনা থেকেই ভেঙে যায়, যার ফলে প্রশাসনে শূন্যতার সৃষ্টি হয়।

বিক্রমাসিংহকে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে নির্বাচন করার পদক্ষেপটিকে, সংকটের ফলে সৃষ্ট সহিংসতার অবসান এবং আন্তর্জাতিক গ্রহণযোগ্যতা পুনঃস্থাপনে প্রেসিডেন্টের একটি প্রচেষ্টা হিসেবে দেখা হচ্ছে। শ্রীলঙ্কার সরকার আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলের কাছ থেকে একটি আর্থিক উদ্ধার প্যাকেজের বিষয়ে সমঝোতা করতে আলোচনা চালিয়ে যাচ্ছে।

বিক্ষোভকারীদের উপর হামলার ফলে দেশজুড়ে সহিংসতা আরম্ভ হলে, বুধবার কর্তৃপক্ষ রাজধানীর সড়কে সাঁজোয়া যান এবং সৈন্য মোতায়েন করে। সহিংসতায় নয়জনের মৃত্যু হয়েছে এবং ২০০ জনেরও বেশি মানুষ আহত হয়েছেন।

কয়েক সপ্তাহ ধরেই, বিক্ষোভকারীরা রাজাপাকসে ভ্রাতৃদ্বয়ের পদত্যাগের দাবি জানিয়ে আসছেন। ঋণ সংকটের ফলে দেশটি প্রায় দেউলিয়া হয়ে গিয়েছে এবং জ্বালানী, খাদ্য এবং অন্যান্য নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসের ব্যাপক সংকট দেখা দিয়েছে।


XS
SM
MD
LG