অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

মালির সামরিক জান্তা বলেছে তারা অভ্যুত্থান প্রচেষ্টাকে ব্যর্থ করেছে


কর্নেল আসিমি গোইটা, যিনি দুটি সামরিক অভ্যুত্থানের নেতা, তাঁকে মালির বামাকোতে, মালির নতুন অন্তর্বর্তী রাষ্ট্রপতি হিসাবে অভিষেক অনুষ্ঠানে দেখা যাচ্ছে ৷ ৭ই জুন, ২০২১ ।

মালির সামরিক জান্তা সোমবার বলেছে যে তারা গত সপ্তাহে সেনা কর্মকর্তাদের নেতৃত্বে এবং একটি পশ্চিমা রাষ্ট্র, যার নাম উল্লেখ করা হয়নি, তাদের দ্বারা সমর্থিত একটি অভ্যুত্থান প্রচেষ্টা ব্যর্থ করেছে।

রাষ্ট্রীয় টেলিভিশনে পঠিত বিবৃতিতে বলা হয়েছে "একটি ছোট দল প্রগতিশীল বিরোধী মালির অফিসার এবং নন-কমিশনড অফিসাররা ২০২২ সালের ১১ থেকে ১২ মে, এর রাতে একটি অভ্যুত্থানের চেষ্টা করেছিল।"

"এই সৈন্যদের একটি পশ্চিমা রাষ্ট্র সমর্থন করছিল। প্রতিরক্ষা এবং নিরাপত্তা বাহিনীর সতর্কতা এবং পেশাদারিত্বের জন্য এই প্রচেষ্টা ব্যর্থ হয়েছে।"

বিবৃতিতে কি ঘটেছে তার তেমন কোন বিবরণ দেওয়া হয়নি।

এতে গ্রেফতারের কথা উল্লেখ করে বলা হয়, আটক ব্যক্তিদের বিচারের আওতায় সোপর্দ করা হবে। তাদের পরিচয় ও অবস্থান প্রকাশ করা হয়নি।

আরো বলা হয়েছে যে রাজধানী বামাকোর চারপাশে এবং মালির সীমান্তে তল্লাশি জোরদার করা হয়েছে।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে একটি সামরিক সূত্র প্রায় ১০ জনকে গ্রেপ্তারের কথা বলেছে এবং অন্যদের গ্রেপ্তার করা হচ্ছে বলে জানিয়েছে।

সরকারি বিবৃতিতে বলা হয়েছে, তদন্তের জন্য এবং এই অভূত্থানের সহযোগীদের খুঁজে বের করার জন্য "সব প্রয়োজনীয় উপায়" অবলম্বন করা হচ্ছে।

গত সপ্তাহে ঘটে যাওয়া অভ্যুত্থানের চেষ্টার কোনো ইঙ্গিত সোমবার সন্ধ্যা পর্যন্ত পাওয়া যায়নি।

২০২০ সালের আগস্ট থেকে মালিতে দুটি সামরিক অভ্যুত্থান হয়েছে, যখন নির্বাচিত প্রেসিডেন্ট ইব্রাহিম বোবাকার কেইতাকে সেনাবাহিনী ক্ষমতাচ্যুত করে।

পশ্চিম আফ্রিকার এই দেশটি ২০১২ সাল থেকে দেশের উত্তরে ও মধ্যাঞ্চলে আল-কায়েদা এবং ইসলামিক স্টেট গোষ্ঠীর সাথে সম্পৃক্ত গোষ্ঠীগুলির জিহাদি বিদ্রোহের বিরুদ্ধে লড়াই করছে।

প্রতিবেশী নিজার এবং বুরকিনা ফাসোতেও এই লড়াই ছড়িয়ে পড়েছে।

XS
SM
MD
LG