অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

আমেরিকান সেনা প্রত্যাবর্তনকে স্বাগত জানিয়েছেন সোমালিয়ার নতুন প্রেসিডেন্ট


সোমালিয়ার রাজধানী মোগাদিশুর হালেন সামরিক ক্যাম্পে নির্বাচনী বিজয়ের পর বক্তৃতা করছেন হাসান শেখ মোহামুদ। রবিবার, ১৫ মে, ২০২২।

সোমালিয়ার আল-শাবাব সন্ত্রাসী গোষ্ঠীর বিরুদ্ধে লড়াইয়ে সহায়তা করার জন্য যুক্তরাষ্ট্রের বিশেষ অপারেশন বাহিনী আবারও সোমালিয়ায় অবস্থান করবে। বিষয়টিকে স্বাগত জানিয়েছেন সোমালিয়ার নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্ট হাসান শেখ মোহামুদ।

প্রেসিডেন্ট হাসান শেখ মোহামুদ মঙ্গলবার এক টুইট বার্তায় যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনকে ধন্যবাদ জানিয়ে যুক্তরাষ্ট্রকে "স্থিতিশীলতা ও সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে আমাদের একটি নির্ভরযোগ্য অংশীদার" বলে অভিহিত করেছেন।

যুক্তরাষ্ট্রের বাহিনী আল-শাবাবকে নিয়ন্ত্রণ করার প্রচেষ্টায়, সোমালি বাহিনীর সাথে বছরের পর বছর ধরে কাজ করে আসছে। যুক্তরাষ্ট্রের সামরিক ও গোয়েন্দা কর্মকর্তারা আল-শাবাবকে আল-কায়েদা সন্ত্রাসী গোষ্ঠীর সবচেয়ে ধনী এবং সবচেয়ে শক্তিশালী সহযোগী হিসাবে মনে করেন। কিন্তু ২০২০ সালের ডিসেম্বরে, সাবেক প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্প সোমালিয়ায় যুক্তরাষ্ট্রের প্রায় ৭৫০ জন সৈন্যকে দেশটি থেকে প্রত্যাহার করার নির্দেশ দেন।

মঙ্গলবার আনুষ্ঠানিক ঘোষণার আগে মোহামুদের একজন ঊর্ধ্বতন উপদেষ্টা ভিওএ-কে বলেন, “ওটা একটা ভুল সিদ্ধান্ত ছিল। সে সময় খুব তাড়াহুড়া করেই প্রত্যাহারের সিদ্ধান্তটা নেয়া হয়েছিল।”

নতুন অনুমোদন নিয়ে আলোচনা করার জন্য নাম প্রকাশ না করার শর্তে হোয়াইট হাউজের একজন কর্মকর্তা সোমবার বলেছেন, সোমালিয়ায় যুক্তরাষ্ট্রের চলমান সামরিক উপস্থিতি আর বজায় না রাখার ২০২০ সালের সিদ্ধান্তের পর থেকে আল-শাবাব "দুর্ভাগ্যবশত ক্রমশ শক্তিশালী হয়ে উঠেছে।"

এছাড়া, বিভিন্ন দেশ থেকে সংগৃহীত গোয়েন্দা তথ্য এবং এই বছরের শুরুর দিকে জাতিসংঘের সন্ত্রাসবাদ পর্যবেক্ষণ দলের সাথে বিনিময় করা উপাত্ত থেকেও বোঝা যায়, আল-শাবাব সত্যিকার অর্থে আরও শক্তিশালী হয়েছে।

ফেব্রুয়ারীতে প্রকাশিত আনুমানিক হিসেব নির্দেশ করে যে, আল-কায়েদার সহযোগী ওই গোষ্ঠীর এখন ১২,০০০ যোদ্ধা রয়েছে এবং প্রতি মাসে তারা প্রায় ১ কোটি ডলার পর্যন্ত রাজস্ব বাড়াতে সক্ষম।

সব মিলিয়ে, যুক্তরাষ্ট্রের কর্মকর্তারা বলেছেন, এটি স্পষ্ট হয়ে গেছে যে, সোমালিয়ার মাটিতে যুক্তরাষ্ট্রের একটি অব্যাহত উপস্থিতি প্রয়োজন।

পেন্টাগনের প্রেস সেক্রেটারি জন কার্বি সোমবার সাংবাদিকদের বলেছেন, "এটি আমাদের জন্য সবচেয়ে মূল্যবান উপদেশ-সহায়তা এবং প্রশিক্ষণ মিশন চালিয়ে যাওয়ার সর্বোত্তম উপায়।"

কিন্তু, সামনে আরও বিমান হামলার সম্ভাবনা আছে কিনা, যুক্তরাষ্ট্রের কর্মকর্তাদের এমন প্রশ্ন করা হলে, তাঁরা সুনির্দিষ্ট কোন উত্তর দেননি।

পেন্টাগনের কার্বি সাংবাদিকদের বলেছেন, "আমি মনে করি আমরা এখানে কেবল মিশনটি চালানোর অনুমতি দেব। আমি এমন কোনও ভবিষ্যদ্বাণী করছিনা যে, বিমান হামলার মতো কার্যকলাপগুলি সামনের দিকে আরও বাড়বে কিংবা কমবে কিনা এবং তা কীভাবে ও কী মাত্রায়।"

তিনি আরও বলেন, “মিশনটি আমাদের সৈন্যদের জন্য একটি যুদ্ধ অভিযান নয়। এটা কেবল পরামর্শ এবং সহযোগিতা।”

XS
SM
MD
LG