অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

সুনামগঞ্জে সুরমা নদীর পানি বিপদসীমার ওপর দিয়ে বইছে


সিলেটের বন্যা পরিস্থিতি

গত কয়েকদিন ধরে ভারতের মেঘালয় ও চেরাপুঞ্জিতে অবিরাম বৃষ্টিপাত অব্যাহত থাকায় এবং উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢল ও ভারী বর্ষণের কারণে, বাংলাদেশের সুনামগঞ্জের নদ নদীতে পানি বৃদ্ধি পেয়েছে। জেলার ষোলঘরে, সুরমা নদীর পানি বিপদসীমার ১৬ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। গত ২৪ ঘন্টায় শুক্রবার (২০ মে) সকাল ৯টা পর্যন্ত ৭৮ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে।

শহরের নিম্নাঞ্চলের বিভিন্ন রাস্তাঘাট ও বাসাবাড়িতে পানি প্রবেশ করছে। তবে পানি কমতে শুরু করেছে।

জেলার ছাতক, দোয়ারাবাজার, তাহিরপুর, বিশ্বম্ভরপুর, ধর্মপাশাসহ বেশ কয়েকটি উপজেলার নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হয়েছিল।এখনও কিছু কিছু উপজেলার অনেক গ্রাম জলমগ্ন। এখনও দুর্ভোগে আছেন এসব এলাকার মানুষজন। বিশেষ করে, নিম্ন আয়ের মানুষজনের রোজগার বন্ধ থাকায় পরিবার পরিজন নিয়ে সংকটের মধ্যে দিন কাটাচ্ছেন।

এদিকে, জেলার ছাতক উপজেলায় সুরমা নদীর পানি বিপদসীমার ৫০ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। ফলে শহরের বিভিন্ন অলিগলি ও বাসাবাড়িতে এখনও পানি জমে আছে।

এ বিষয়ে, সুনামগঞ্জ কৃষি বিভাগের উপ পরিচালক বিমল চন্দ্র সোম জানিয়েছেন, “কয়েক দিন ধরে টানা বৃষ্টিপাত অব্যাহত থাকায়, সুনামগঞ্জ সদর, বিশ্বম্ভরপুর, তাহিরপুর, ছাতক ও দোয়ারাবাজার উপজেলায় ৭৭৭ হেক্টর জমির বোরো ধান, ৭৫ হেক্টর বাদাম,৭৪ হেক্টর আউশ বীজতলা,৬০ হেক্টর সব্জি এবং ২০ হেক্টর জমির আউশ ধান পানিতে তলিয়ে গেছে।”

মৎস্য বিভাগ জানিয়েছে, টানা বৃষ্টিপাতের ফলে জেলার ছাতক ও দোয়ারাবাজারে প্রায় সাড়ে ৪শ’ পুকুর ডুবে ৩৫ টন মাছ ও ৩০ লাখ পোনা ভেসে গেছে। এর ক্ষতির পরিমাণ অন্তত আড়াই কোটি টাকা।

পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী জহুরুল ইসলাম জানিয়েছেন, “মেঘালয় চেরাপুঞ্জিতে বৃষ্টি এবং সুনামগঞ্জে গত ২৪ ঘণ্টায় ৭৮ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে।”

জেলা প্রশাসক মো. জাহাঙ্গীর হোসেন জানিয়েছেন, “ইতোমধ্যে ছাতক, দোয়ারাবাজার, সদর ও তাহিরপুরে আট হাজার পরিবার বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এদের মধ্যে ১৪০ মেট্রিন টন চাল, নগদ ১২ লাখ টাকা ও দুই হাজার শুকনো খাবারের প্যাকেট বিতরণ করা হয়েছে।”

২৫৬টি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে পানি প্রবেশ করায় শিক্ষা কার্যক্রম বন্ধ রয়েছে এবং ২০টির মতো আশ্রয় কেন্দ্রে প্রস্তত রাখা হয়েছে বলেও জানান জেলা প্রশাসক ।

XS
SM
MD
LG