অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে সংঘর্ষ: ছাত্রদল সভাপতি-সম্পাদকসহ ৩৫ জনের আগাম জামিন


ছাত্রলীগ-ছাত্রদল সংঘর্ষ

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে (ঢাবি) সংঘর্ষের ঘটনায় ছাত্রলীগ নেতাদের পক্ষ থেকে শাহবাগ ও পল্টন থানায় করা পৃথক দৃই মামলায় ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় সভাপতি কাজী রওনাকুল ইসলাম শ্রাবণ ও সাধারণ সম্পাদক সাইফ মাহমুদ জুয়েলসহ ৩৫ জনের ছয় সপ্তাহের আগাম জামিন মঞ্জুর করেছেন হাইকোর্ট। একই সঙ্গে তাদেরকে ওই সময়ের মধ্যে বিচারিক আদালতে আত্মসমর্পনের নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

তারা সশরীরে হাজির হয়ে আগাম জামিনের আবেদন জানালে বুধবার হাইকোর্টের বিচারপতি মোস্তফা জামান ইসলাম ও বিচারপতি মো. সেলিমের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ তাদের আগাম জামিন আবেদন মঞ্জুর করেন। আদেশের বিষয়টি নিশ্চিত করেন বিএনপির আইন বিষয়ক সম্পাদক ব্যারিস্টার কায়সার কামাল।

বুধবার আদালতে জামিন আবেদনের পক্ষে শুনানি করেন জ্যেষ্ঠ আইনজীবী এ জে মুহাম্মদ আলী। তাকে সহযোগিতা করেন ব্যারিস্টার কায়সার কামাল। এসময় আদালতে উপস্থিত ছিলেন অ্যাডভোকেট জয়নুল আবেদীন, জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরামের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য সচিব ও সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী মো. ফজলুর রহমান, ব্যারিস্টার বদরোদ্দোজা বাদল, ব্যারিস্টার এ এম মাহবুব উদ্দিন খোকন, ব্যারিস্টার রুহুল কুদ্দুস কাজল ও সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী ফোরামের সভাপতি অ্যাডভোকেট আব্দুল জব্বার ভুইয়া ও সাধারণ সম্পাদক গাজী মো. কামরুল ইসলাম সজল প্রমুখ।

অন্যদিকে, রাষ্ট্রপক্ষে জামিনের বিরোধিতা করেন সহকারী অ্যাটর্নি জেনারেল মিজানুর রহমান।

এর আগে প্রথম দফায় গত ২২ মে এবং দ্বিতীয় দফায় গত ২৪ মে ছাত্রদল মিছিল নিয়ে ঢাবি ক্যাম্পাসে ঢুকতে চাইলে তাদের বাধা দেন ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা। একপর্যায়ে দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। সংঘর্ষে উভয়পক্ষের বেশ কয়েকজন নেতাকর্মী আহত হন। ছাত্রদল নেতাকর্মীদের অভিযোগ, ছাত্রলীগের হামলায় তাদের অন্তত ৩০ নেতাকর্মী আহত হয়েছেন।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে (ঢাবি) সংঘর্ষের ঘটনায় ছাত্রলীগ নেতাদের পক্ষ থেকে শাহবাগ ও পল্টন থানায় করা পৃথক দৃই মামলায় ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় সভাপতি কাজী রওনাকুল ইসলাম শ্রাবণ ও সাধারণ সম্পাদক সাইফ মাহমুদ জুয়েলসহ ৩৫ জনের ছয় সপ্তাহের আগাম জামিন মঞ্জুর করেছেন হাইকোর্ট। একই সঙ্গে তাদেরকে ওই সময়ের মধ্যে বিচারিক আদালতে আত্মসমর্পনের নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

ছাত্রলীগ ‘পূর্ব পরিকল্পনার’ অংশ হিসেবে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে ছাত্রদলের ওপর হামলা করেছে বলে দাবি সংগঠনটির সভাপতি কাজী রওনকুল ইসলাম শ্রাবণের। শনিবার ভয়েস অফ আমেরিকাকে দেয়া সাক্ষাৎকারে তিনি দাবি করেন, ‘‘ছাত্রলীগের বর্তমান নেতৃত্ব ক্যাম্পাসের পরিবেশ নষ্ট করে তাদের ক্ষমতা ধরে রাখার চেষ্টা করছে।’’

সামনে ডাকসু নির্বাচনে ছাত্রদল যেন জয়ী হতে না পেরে সেই উদ্দেশ্যে ছাত্রলীগ তাদের ‘স্বাভাবিক রাজনৈতিক কর্মকাণ্ডে’ বাধা দিচ্ছে বলেও অভিযোগ শ্রাবণের।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে অস্থিরতার জন্য ছাত্রদলকে দায়ী করে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সাদ্দাম হুসেইন ভয়েস অফ আমেরিকার কাছে দাবি করেছেন, ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের মেগা প্রজেক্টগুলো যখন উদ্বোধনের অপেক্ষায়, তখন ছাত্রদল ‘মেগা সন্ত্রাস’ উপহার দিচ্ছে বলে মন্তব্য করেছেন এই ছাত্রনেতা।

শনিবার (২৮ মে) টিএসসিতে বসে ভয়েস অফ আমেরিকাকে দেয়া সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন, "আমরা বাংলাদেশ ছাত্রলীগ সন্ত্রাসের শিকার হওয়ার আশঙ্কা করছি। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা আঘাতপ্রাপ্ত হওয়ার শঙ্কা করছে।’’

XS
SM
MD
LG