অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

সিভিরোডনেটস্ক-এ ইউক্রেন বাহিনী অবস্থান হারিয়েছে, বলছেন লুহানস্ক কর্মকর্তা


লুহানস্ক অঞ্চলের লিসিশ্যাঙ্কস-এ ইউক্রেন বাহিনীর অবস্থান পরিদর্শনের সময়ে এক সৈন্যের প্রতি শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করছেন প্রেসিডেন্ট জেলেন্সকি, ৫ জুন ২০২২। সৌজন্যে: ইউক্রেনিয়ান প্রেসিডেন্সিয়াল প্রেস সার্ভিস/রয়টার্স।

সাম্প্রতিক ‍দিনগুলোতে কিছুটা অগ্রগতি করার পর, সিভিরোডনেটস্ক শহরে লড়াইরত ইউক্রেনের যোদ্ধারা রুশ বাহিনীর কাছে আবারও নিজেদের কিছু অবস্থান হারিয়েছে বলে ঐ অঞ্চলের গভর্নর জানিয়েছেন।

সোমবার লুহানস্ক অঞ্চলের গভর্নর সের্হি হাইদাই বলেন, “আমাদের প্রতিরক্ষাকারীরা একটা নির্দিষ্ট সময়ের জন্য পাল্টা আক্রমণ করতে পেরেছিল; তারা শহরের প্রায় অর্ধেক মুক্ত করে ফেলেছিল। কিন্তু এখন আমাদের জন্য পরিস্থিতি আবার কিছুটা খারাপ হয়ে গিয়েছে।” সিভিরোডনেটস্ক লুহানস্ক অঞ্চলেই অবস্থিত।

ব্রিটেনের প্রতিরক্ষা মন্ত্রক সোমবার জানায় যে, সিভিরোডনেটস্কে তুমুল লড়াই অব্যাহত রয়েছে।

এদিকে, ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেন্সকি রবিবার কিয়েভের বাইরে বিরল এক সফর করেন। তিনি ইউক্রেনের পূর্বাঞ্চলে গিয়ে সৈন্য ও শরণার্থীদের সাথে দেখা করেন। তিনি বেশ কয়েক জায়গায় যাত্রাবিরতি করেন। এর মধ্যে সিভিরোডনেটস্ক-এর কাছের লিসিশ্যাঙ্কসও রয়েছে।

ব্রিটেনের প্রতিরক্ষা মন্ত্রক এও জানায় যে, রবিবার উৎক্ষেপণ করা রুশ ক্ষেপণাস্ত্র কিয়েভে রেল অবকাঠামোতে আঘাত হানে। তারা বলে, “সম্ভবত ফ্রন্টলাইনে ইউক্রেনের ইউনিটগুলোর কাছে পশ্চিমা সামরিক সরঞ্জাম সরবরাহ ব্যাহত করার প্রচেষ্টা হিসেবে” এমন করা হয়।

এক মাসেরও বেশি সময় পর কিয়েভে আবারও হামলা চালানো হল।

রাশিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রক জানিয়েছে যে, কিয়েভে পশ্চিমা সরকারগুলোর পাঠানো ট্যাংক রুশ বাহিনী ধ্বংস করেছে।

রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন সতর্ক করেছিলেন যে, পশ্চিমা দেশগুলো যদি ইউক্রেনে দূরপাল্লার রকেট ব্যবস্থা পাঠানোর পরিকল্পনায় অগ্রসর হয়, তাহলে রাশিয়া এমন সব লক্ষ্যবস্তুতে আঘাত হানবে “যেগুলোতে আমরা এখনও আঘাত করিনি।”

XS
SM
MD
LG