অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

চীনের সাথে ক্রমবর্ধমান উত্তেজনার প্রেক্ষিতে যুক্তরাষ্ট্র ‘চায়না হাউজ’ গঠন করছে


সিঙ্গাপুরে সাম্প্রতিক একটি নিরাপত্তা সম্মেলনের সময় চীনের প্রতিরক্ষা মন্ত্রী জেনারেল ওয়েই ফেঙ্ঘে বলেন, দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কের উন্নয়ন যুক্তরাষ্ট্রের ওপর নির্ভর করে। ১২ জুন, ২০২২।

দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কের উত্তেজনার প্রেক্ষিতে যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র দপ্তর বিশ্ব জুড়ে চীন কী করছে তা আরও ভালোভাবে পর্যবেক্ষণ করার জন্য ‘চায়না হাউজ’ তৈরি করছে।

সিঙ্গাপুরে সদ্য সমাপ্ত নিরাপত্তা সম্মেলনে চীনের প্রতিরক্ষা মন্ত্রী ওয়েই ফেঙ্ঘে বলেছেন, দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কের উন্নয়ন যুক্তরাষ্ট্রের ওপর নির্ভর করে।

যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র মন্ত্রী লয়েড অস্টিন চীনা উড়োজাহাজ ও জাহাজ এবং অন্যান্য দেশের মধ্যে অনিরাপদ ও অপেশাদার সংঘর্ষের ‘উদ্বেগজনক’ বৃদ্ধির কথা উল্লেখ করেছেন।

পররাষ্ট্র মন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিংকেন গত মাসে “নিয়ম-ভিত্তিক শৃংখলার জন্য সবচেয়ে গুরুতর দীর্ঘমেয়াদী চ্যালেঞ্জ” হিসেবে চীনের আবির্ভাবের কথা বলেন। চায়না হাউজ প্রকল্প যুক্তরাষ্ট্রের সেই উদ্বেগের প্রতিফলন।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন মুখপাত্র গত সপ্তাহে ভয়েস অফ আমেরিকাকে বলেন, “আমরা নতুন এই কেন্দ্রীয় নীতি সমন্বয় কেন্দ্রে পিআরসি দক্ষতা এবং সংস্থাগুলোকে একীভূত করার প্রচেষ্টা চালিয়ে যাব এবং ত্বরান্বিত করব।”

চীনের সাথে ক্রমবর্ধমান প্রতিদ্বন্দ্বিতা মোকাবিলায় যুক্তরাষ্ট্রের প্রচেষ্টার প্রেক্ষিতে ২৬ মে আনুষ্ঠানিকভাবে চায়না হাউজের ঘোষণা দেয়া হয়।

যুক্তরাষ্ট্রের কয়েকজন সরকারি কর্মকর্তা এবং চীন-যুক্তরাষ্ট্র সম্পর্কের বিশেষজ্ঞ বলেছেন, তাদের বিশ্বাস, চায়না হাউজ তৈরির মাধ্যমে বাইডেন প্রশাসন চীনের সাথে ভবিষ্যতের সম্পর্কের বিষয়ে একটা অবস্থান নিচ্ছে।

আড্রিয়ানা ঝ্যাং এবং নাইকি চিং এ প্রতিবেদন তৈরিতে সহায়তা করেছেন।

XS
SM
MD
LG