অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

ইরানে মৃত্যুদণ্ডের ক্রমবর্ধমান ব্যবহারের নিন্দা করেছে জাতিসংঘ


তেহরানে, ফাঁসি কার্যকর করার আগে দড়ি পরীক্ষা করছেন ইরানের বিশেষ পুলিশ বাহিনীর একজন সদস্য৷ ২ আগস্ট, ২০০৭। (ফাইল)

আন্তর্জাতিক আইন লঙ্ঘন করে শিশুসহ নাগরিকদের মৃত্যুদণ্ড এবং ক্রমবর্ধমান ভাবে মৃত্যুদণ্ডের ব্যবহারের জন্য ইরানের নিন্দা করেছেন জাতিসংঘের মহাসচিব আন্তোনিও গুতেরেস। তিনি জাতিসংঘের মানবাধিকার কাউন্সিলে ইরানের মানবাধিকার পরিস্থিতি নিয়ে একটি প্রতিবেদন জমা দিয়েছেন।

মহাসচিব তেহরানের মৃত্যুদন্ড ও মৃত্যুদণ্ডের ক্রমবর্ধমান এই ব্যবহার নিয়ে পরিতাপের সাথে বলেছেন, এগুলো "সবচেয়ে গুরুতর অপরাধের" শাস্তি হতে পারেনা এবং ন্যায় বিচারের মানদন্ডগুলি সাথে অসঙ্গতিপূর্ণ।

জাতিসংঘের মানবাধিকার বিষয়ক সহকারী মহাসচিব নাডা আল-নাশিফ, তাঁর উপস্থাপিত প্রতিবেদনে লিখেছেন, ইরানে গত দুই বছরে ৫৭০ জনের মৃত্যুদন্ড কার্যকর করা হয়েছে, যাদের বেশিরভাগের বিরুদ্ধে মাদক সম্পর্কিত অপরাধের অভিযোগে। তিনি বলেন, কার্যকর করা এসব মৃত্যুদন্ডের মধ্যে ১৪ জন নারী এবং ১০০ জনেরও বেশি সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের সদস্য।

আন্তর্জাতিক আইন লঙ্ঘন করে ২০২১ সালের আগস্ট থেকে ২০২২ সালের মার্চ মাসের মধ্যে কমপক্ষে দুই শিশু অপরাধীর মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করার নিন্দা করেছেন আল-নাশিফ। তিনি বলেন, এখনো ৮৫ জনের বেশি মৃত্যুদণ্ড প্রাপ্ত শিশু অপরাধী দন্ড কার্যকর অপেক্ষায় রয়েছে।

প্রতিবেদনে ইরানের সরকারকে ক্রমবর্ধমান দমনমূলক পদক্ষেপের মাধ্যমে জনগণের উপর শক্ত হাতে নিয়ন্ত্রণ বজায় রাখার অভিযোগ আনা হয়েছে। এতে বলা হয়, সরকার আইনের সীমাবদ্ধতা, সহিংসতার ব্যবহার এবং জনগণের মানবাধিকারের ব্যাপক লঙ্ঘনের মাধ্যমে তাদের সম্পূর্ণ নিয়ন্ত্রণ বজায় রাখে।

আল-নাশিফ জনগণের প্রজনন অধিকার এবং ইন্টারনেটে সেন্সরবিহীন প্রবেশাধিকারের ক্ষতিকারক পরিণতিসহ একাধিক আইনী ব্যবস্থার উল্লেখ করেছেন। তিনি বলেন, আইনগুলি নারীদের বিরুদ্ধে সহিংসতাকে অপরাধ হিসেবে পরিগণিত করতে ব্যর্থ হয় এবং সেগুলো সংখ্যালঘুদের অধিকার, বিশেষ করে বাহাই ধর্মীয় সংখ্যালঘুরা এতে ক্ষতির শিকার হচ্ছে।

তবে, জেনেভায় ইরানের উপ-স্থায়ী প্রতিনিধি, মেহেদি আলি আবাদি এই প্রতিবেদনটিকে তার দেশের বিরুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্র এবং কানাডার একটি ভয়ঙ্কর এবং অসম্মানজনক রাজনৈতিক হাতিয়ার বলে নিন্দা করেছেন। তিনি বলেন, প্রতিবেদনটি পক্ষপাতদুষ্ট এবং মিথ্যা অভিযোগের ভিত্তিতে তৈরি করা হয়েছে । তিনি বলেন, ইরান মানবাধিকারকে তুলে ধরতে ও রক্ষা করতে সম্পূর্ণ প্রতিশ্রুতিবদ্ধ এবং তারা আন্তর্জাতিক বাধ্যবাধকতাকে সম্মান করে।

XS
SM
MD
LG