অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

আফগানদের জন্য অভিবাসনের আবশ্যিক কিছু শর্ত শিথিল করেছে যুক্তরাষ্ট্র


আফগানিস্তান থেকে যুক্তরাষ্ট্রে আসা অভিবাসী আরাফাত সাফি, তার ৮ বছর বয়সী মেয়ে হানজালা সাফিকে ভার্জিনিয়ার আলেকজান্দ্রিয়া এলাকার একটি স্কুল থেকে তুলে আনার সময় বুকে জড়িয়ে ধরে আছেন। এপ্রিল ৭, ২০২২।

যুক্তরাষ্ট্রে পুনর্বাসনের জন্য আবেদন করার বিষয়ে আফগানদের ভিসা প্রাপ্তির জন্য কিছু কঠোর প্রয়োজনীয়তা শিথিল করেছে যুক্তরাষ্ট্র সরকার।

এখন পর্যন্ত, আফগানরা যারা তালিবান শাসনের অধীনে বেসামরিক পদে অধিষ্ঠিত ছিল তারা এই ভিত্তিতে আমেরিকান ভিসার জন্য অযোগ্য বলে বিবেচিত হয়ে আসছে যে কোনও একটি সন্ত্রাসী গোষ্ঠীর সাথে তাদের সম্পর্ক রয়েছে । বাইডেন প্রশাসন বলেছে যে, এই নিয়ম আর থাকছে না।

যুক্তরাষ্ট্র পররাষ্ট্র দপ্তরের একজন মুখপাত্র ভিওএ-কে বলেছেন, যে সব আফগান নাগরিক ১৯৯৬ সালের সেপ্টেম্বর থেকে ২০০১ সালের ডিসেম্বর পর্যন্ত আফগানিস্তানে প্রথম তালিবান শাসনের সময় এবং ১৫ আগস্ট, ২০২১ এর পর সরকারী কর্মচারী হিসাবে কাজ করেছিল, তারা এই নতুন নীতির অধীনে যোগ্য বলে বিবেচিত হবে।

ওই মুখপাত্র আরও বলেন, "চিকিৎসক, শিক্ষক, প্রকৌশলী এবং অন্যান্য আফগান, যারা সাহস এবং বিশ্বস্ততার সাথে আফগানিস্তানে আমেরিকান বাহিনীকে তাদের নিরাপত্তার জন্য অনেক বড় ঝুঁকির মধ্যেও সমর্থন করেছিলেন, তাদের যুদ্ধের অনিবার্য নৈকট্যের কারণে মানবিক সুরক্ষা এবং অন্যান্য অভিবাসন সুবিধা থেকে বঞ্চিত করা উচিত নয়।

তবে যে সব আফগানরা ২০০৯ সালে কংগ্রেস প্রণীত প্রোগ্রাম স্পেশাল ইমিগ্রেন্ট ভিসা (এসআইভি) এর মাধ্যমে যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশের জন্য আবেদন করেছিল, তাদের অবশ্যই অন্যান্য নথির মধ্যে, আফগানিস্তানে আমেরিকান প্রকল্পের অধীনে থাকা কোনও তত্ত্বাবধায়কের কাছ থেকে একটি সুপারিশপত্র জমা দিতে হবে।

২০১৪ সাল থেকে, কংগ্রেস আফগান এসআইভি প্রোগ্রামের জন্য ৩৪,৫০০টি মুখ্য ভিসা অনুমোদন করেছে এই সংখ্যা পরিবরের নির্ভরশীল সদস্যদের জন্য ইস্যু করা ভিসা বাদ দিয়ে, যার মধ্যে প্রায় ১৬,০০০ ভিসা এখনো দেয়া বাকি রয়েছে।

আইআরএপিসহ মানবাধিকার ও শরণার্থী সংস্থাগুলির জোট,ইভ্যাকুয়েট আওয়ার অ্যালাইজ আফগানদের জন্য ২৫০০০ অতিরিক্ত এসআইভি ভিসা অনুমোদনের জন্য কংগ্রেসের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে৷

বর্তমানে, স্ক্রীনিং এবং অনুমোদনের অপেক্ষায় রয়েছে কমপক্ষে ৫০,০০০ মূল আবেদন।

পররাষ্ট্র দপ্তরের মুখপাত্র বলেছেন, "আমরা আগের চেয়ে আরও বেশি প্রাথমিক আবেদন প্রক্রিয়া সম্পাদন করছি।"

আফগানিস্তানের রাজধানী কাবুলে যুক্তরাষ্ট্রের দূতাবাস গত বছরের আগস্ট থেকে বন্ধ রয়েছে। তবে যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র দপ্তর বলছে, তাঁরা এসআইভি আবেদনগুলিকে উন্নত এবং ত্বরান্বিত করতে তৃতীয়-দেশের দূতাবাস এবং কনস্যুলেটগুলিতে তাঁদের কর্মী বাড়িয়েছে।

XS
SM
MD
LG