অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

আফগানিস্তানে ভূমিকম্পের পর আন্তর্জাতিক সাহায্যের আহ্বান জানিয়েছে তালিবান


পাকতিকা প্রদেশের গায়ান গ্রামে ভূমিকম্পের পরে দু'জন আফগান ধ্বংসাবশেষের মধ্যে দাঁড়িয়ে আছেন। ২৩ জুন, ২০২২।

আফগানিস্তানে তালিবান বৃহস্পতিবার আন্তর্জাতিক সাহায্যের আবেদন করেছে। যুদ্ধ-বিধ্বস্ত দেশটি একটি শক্তিশালী ভূমিকম্পের পরবর্তী অবস্থা মোকাবিলা করতে লড়াই করছে। ভূমিকম্পে কমপক্ষে ১ হাজার মানুষ মারা যায়, আরও অনেকে আহত হয় এবং প্রায় ২ হাজার বাড়ি ধ্বংস হয়।

বুধবার ভোররাতে ৬ দশমিক ১ মাত্রার ভূমিকম্পটি পাকিস্তানের সীমান্তবর্তী পূর্ব ও দক্ষিণ-পূর্ব আফগান প্রদেশে আঘাত হানে। কর্মকর্তারা বলেছেন, এ ভূমিকম্পে সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্থ প্রদেশ পাকতিকা ও খোস্ত জেলা জুড়ে বিপুল ধ্বংসস্তূপের নিচে নারী ও শিশুসহ অনেক পরিবারের সবাই চাপা পড়েছে।

কাবুলে তালিবানের পররাষ্ট্র মন্ত্রকের মুখপাত্র আব্দুল কাহার বালখি বলেছেন, ক্ষতিগ্রস্তদের জন্য জরুরিভাবে খাদ্য, পানীয় জল, ওষুধ, মোবাইল মেডিকেল টিম, গরম পোশাক এবং আশ্রয়ের প্রয়োজন।

বৃহস্পতিবার জাতিসংঘের বিশ্ব খাদ্য কর্মসূচি বলেছে, দুর্যোগ-পরবর্তী মূল্যায়ন এখনো চলমান রয়েছে তবে এটি ভূমিকম্প-কবলিত এলাকায় প্রাথমিকভাবে ৩ হাজার পরিবারকে জরুরি ত্রাণ সরবরাহ করতে দ্রুত খাদ্য ও রসদ সরঞ্জাম সরবরাহ করছে।

দক্ষিণ এশীয় এ দেশটিতে প্রায় ২ দশকের বিদেশী সামরিক হস্তক্ষেপের অবসান ঘটিয়ে ৩০ আগস্ট যুক্তরাষ্ট্র ও নেটো অংশীদাররা তাদের সেনা প্রত্যাহার চূড়ান্ত করার কয়েকদিন পর ইসলামপন্থী দলটি আফগানিস্তান দখল করে।

ওয়াশিংটন এবং অন্যান্য পশ্চিমা দেশগুলো ব্যাপকভাবে সাহায্য-নির্ভর আফগানিস্তানে আর্থিক সহায়তা দ্রুত বন্ধ করে দেয়, দেশটির ৯ শ কোটি ডলারেরও বেশি মূল্যের বৈদেশিক সম্পদ বাজেয়াপ্ত করে, যার বেশিরভাগ অংশ যুক্তরাষ্ট্রের হাতে ছিল এবং আফগান ব্যাংকিং ব্যবস্থাকে বিচ্ছিন্ন করে।

সন্ত্রাসবাদ ও মানবাধিকারের বরাত দিয়ে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায় এখনো ইসলামপন্থী তালিবানকে আফগানিস্তানের বৈধ শাসক হিসেবে স্বীকৃতি দেয়নি।

XS
SM
MD
LG