অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

কাবুলে মানবিক সহায়তা ও কারিগরী দল পাঠাল ভারত


আফগানিস্তানের রাজধানী কাবুলে ভূমিকম্পের জন্য ত্রাণের চালান নিয়ে ভারতের বিমান বাহিনীর একটি বিমান অবতরণ করে, বৃহস্পতিবার, ২৩ জুন ২০২২।

আফগানিস্তানে বুধবারের শক্তিশালী ভূমিকম্পের কবলে পড়া মানুষজনের জন্য ত্রাণ সহায়তা পাঠিয়েছে ভারত। এছাড়াও, আফগানিস্তানের রাজধানী কাবুল থেকে কাজ করার জন্য একটি “কারিগরী দল”-কেও সেখানে পাঠানো হয়।

পররাষ্ট্র মন্ত্রকের তথ্য অনুযায়ী, ২৭ টনের ত্রাণ সহায়তার মধ্যে পরিবারগুলোর জন্য তাঁবু, স্লিপিং ব্যাগ (ভেতরে ঢুকে ঘুমানোর জন্য বিশেষ ধরণের ব্যাগ), কম্বল এবং ঘুমানোর তোষক রয়েছে।

মন্ত্রকের এক বিবৃতিতে বলা হয়, “সব সময়ের মতই ভারত আফগানিস্তানের মানুষের পাশে রয়েছে, যাদের সাথে আমাদের কয়েক শতাব্দীর পুরোনো সম্পর্ক রয়েছে, এবং আফগানিস্তানের মানুষদের ত্রাণ সহায়তা সরবরাহ করতে [ভারত] এখনও দৃঢ় প্রতিজ্ঞ।”

মন্ত্রক বৃহস্পতিবার এও জানায় যে, কাবুলে অবস্থিত ভারতের দূতাবাসের জন্য একটি “কারিগরী দল” পাঠিয়েছে নয়াদিল্লী। দলটি আফগানিস্তানে মানবিক সহায়তার “কার্যকরভাবে বিতরণ কর্মসূচীর ” সমন্বয় করবে। সাম্প্রতিক মাসগুলোতে ভারত দেশটিতে সহায়তা পাঠিয়ে আসছে।

আফগানিস্তানে ভারতের পাঠানো সহায়তার চালানগুলোতে রয়েছে ২০,০০০ টন গম, ওষুধ, কোভিড-১৯ এর পাঁচ লক্ষ ডোজ টিকা এবং শীতের কাপড় ।

বিশ্লেষকরা বলছেন যে, কাবুলে কারিগরী দল পাঠানোকে একটি প্রাথমিক ধাপ হিসেবে দেখা হচ্ছে, যা কিনা আফগানিস্তানে ভারতকে নিজেদের কূটনৈতিক উপস্থিতি পুনর্বহাল করার পথে এগিয়ে নিতে পারে।

আগস্টে তালিবান ক্ষমতা দখলের সময়ে কাবুলে ভারতের দূতাবাস বন্ধ করে দেওয়া হয় এবং কর্মীদের সেখান থেকে ফিরিয়ে আনা হয়। তবে, এই মাসের আগের দিকে ভারত প্রথমবারের মত আফগানিস্তানে কর্মকর্তাদের একটি দল পাঠায়, যাতে কিনা তালিবান নেতৃত্বের সাথে তাদের যোগাযোগ স্থাপনের সিদ্ধান্তের ইঙ্গিত পাওয়া গেছে।

তালিবান ক্ষমতা দখলের আগে, ভারত ঐ অঞ্চলের মধ্যে আফগানিস্তানকে সর্বোচ্চ উন্নয়ন সহায়তা প্রদানকারী দেশ ছিল। সেখানে বিভিন্ন প্রকল্পে ভারত প্রায় ৩০০ কোটি ডলার বিনিয়োগ করে। প্রকল্পগুলোর মধ্যে বিদ্যালয়, রাস্তা, বাধ ও হাসপাতাল নির্মাণও ছিল।

XS
SM
MD
LG