অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

ইউক্রেনের স্লোভিয়ানস্কে ‘ব্যাপক গোলাবর্ষণ’ শুরু করেছে রাশিয়া


ইউক্রেনের ডোনেটস্ক প্রদেশের স্লোভিয়ানস্কের কেন্দ্রীয় বাজারে একটি ক্ষেপণাস্ত্র হামলার পর, অগ্নিনির্বাপক কর্মীরা আগুন নিয়ন্ত্রণে কাজ করছে৷ ৫ জুলাই, ২০২২।

রাশিয়া পূর্ব ইউক্রেনের স্লোভিয়ানস্কে মঙ্গলবার "ব্যাপক গোলাবর্ষণ" শুরু করেছে। শহরের মেয়র বলেছেন, মস্কোর বাহিনী পার্শ্ববর্তী লুহানস্ক প্রদেশের নিয়ন্ত্রণ নিয়ে নেবার পর, দোনেস্ক প্রদেশে হামলা শুরু করেছে।

ইউক্রেনের টেলিভিশনে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে মেয়র ভাদিম লায়খ প্রথমে বাসিন্দাদের পালিয়ে যাওয়ার আহ্বান জানান। কয়েক ঘন্টা পর, তিনি উল্টো কথা বলেন এবং তাদের আশ্রয়কেন্দ্রে আশ্রয় নেওয়ার পরামর্শ দেন। চার মাসেরও বেশি আগে রাশিয়ার আগ্রাসনের আগে, শহরটির যুদ্ধ-পূর্ব জনসংখ্যা ছিল প্রায় ১,০৭,০০০।

লায়াখ সতর্ক করে দিয়ে বলেন, "কামানের গোলা ইতোমধ্যেই শহরে আঘাত করছে," এবং সোমবার রাশিয়ার গোলাবর্ষণে ৪০টি বাড়ি ধ্বংস হয়েছে। লিয়াখ তার ফেসবুকে লিখেছেন, মঙ্গলবার শহরের কেন্দ্রস্থলের বাজারে বোমা বিস্ফোরণে একজন নিহত এবং সাতজন আহত হয়েছে।

ইউক্রেনের সামরিক বাহিনী বলেছে, রাশিয়ার বাহিনী গত দিনে স্লোভিয়ানস্কের কাছে ডোনেটস্কের বেশ কয়েকটি শহর ও গ্রামে বোমাবর্ষণ করেছে কিন্তু শহরের উত্তরে প্রায় ২০ কিলোমিটার দূরে একটি শহরের দিকে অগ্রসর হওয়ার চেষ্টা করায় তাদের প্রতিরোধ করা হয়েছিল। ইউক্রেন বলেছে, শহরের দক্ষিণে, রাশিয়ার বাহিনী ক্রামতোর্স্কের কাছে আরও দুটি শহরে এগিয়ে যাওয়ার এবং গোলাবর্ষণ করে দখল করার চেষ্টা করছে।

রাশিয়ার প্রতিরক্ষামন্ত্রী সের্গেই শোইগু মঙ্গলবার বলেছেন, পুতিন যে সমস্ত লক্ষ্যমাত্রা স্থির করেছেন, তা অর্জন না হওয়া পর্যন্ত ইউক্রেনে যুদ্ধ চলবে। তবে শোইগু বলেছেন যে বর্তমানে মস্কোর "প্রধান অগ্রাধিকার" তাদের সৈন্যদের "জীবন ও স্বাস্থ্য সংরক্ষণ" এবং সেইসাথে "বেসামরিক নাগরিকদের নিরাপত্তার প্রতি হুমকি হ্রাস করা"।

যুদ্ধের শুরুতে, রাশিয়া ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেন্সকি সরকারের পতন ঘটাতে কিংবা রাজধানী কিয়েভ দখল করতে ব্যর্থ হয়েছিল, কিন্তু তারপর থেকে পূর্বের শিল্পোন্নত ডনবাস অঞ্চল দখলের দিকে মনোনিবেশ করেছে।

এর আগে, ইউক্রেনীয় সৈন্যরা তাদের শেষ শক্ত ঘাঁটি লিসিচানস্ক শহর থেকে পিছু হটলে, পুতিন সোমবার লুহানস্ক প্রদেশে বিজয় ঘোষণা করেন।

ইউক্রেনের লুহানস্ক প্রদেশের গভর্নর সেরহি হাইদাই সোমবার দ্য অ্যাসোসিয়েটেড প্রেসকে বলেছেন, ইউক্রেনের বাহিনী ঘেরাও এড়াতে লিসিচানস্ক থেকে পিছু হটেছে।

হাইদাই বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে বলেছেন, লিসিচানস্ককে হারানো বড় কোন ব্যাপার নয় । কারণ সামগ্রিক যুদ্ধে ইউক্রেনের জয়ী হওয়া দরকার, আমাদের লড়াই কোনও শহর রক্ষার জন্য নয়।

এই প্রতিবেদনে কিছু তথ্য এসেছে এপি, রয়টার্স ও এএফপি থেকে

XS
SM
MD
LG