অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

বিদায়ী অর্থবছরে বাংলাদেশে রাজস্ব আদায় হয়েছে প্রায় তিন লাখ কোটি টাকা


বাংলাদেশের জাতীয় রাজস্ব বোর্ড

সরকারি তথ্য অনুযায়ী, ৩০ জুন শেষ হওয়া অর্থবছরে বাংলাদেশের জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) শুল্ক–কর ১৪ শতাংশ বেড়ে ২ লাখ ৯৬ হাজার কোটি টাকা আদায় হয়েছে। রপ্তানি ও আমদানির পরিমাণ বৃদ্ধির ফলে এটি সম্ভব হয়েছে।

বিদায়ী অর্থবছরে রাজস্ব আদায় ১৪ শতাংশ বাড়লেও, তিন লাখ ৩০ হাজার কোটি টাকার লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে ব্যর্থ হয়েছে এনবিআর। তবে, আগের অর্থবছর, ২০২১ সালের চেয়ে ৩৬ হাজার কোটি টাকা বেশি রাজস্ব আদায় করেছে সংস্থাটি।

বিদায়ী অর্থবছরে এনবিআর; আয়কর, মূল্য সংযোজন কর (ভ্যাট) এবং শুল্ক থেকে তিন লাখ ১০ হাজার কোটি টাকার সংশোধিত লক্ষ্যের বিপরীতে প্রায় দুই লাখ ৬০ হাজার কোটি টাকা রাজস্ব আদায় করেছে।

বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় শুল্ক–কর আদায়কারী সংস্থা চট্টগ্রাম কাস্টমস হাউস। সংস্থাটি গত অর্থ বছরে ৫৯ হাজার ২৫৬ কোটি টাকা আদায় করেছে। এছাড়া, আরেকটি বড় কাস্টমস হাউস বেনাপোল, বিদায়ী অর্থবছরে ৪ হাজার ৫৯৯ কোটি টাকা আদায় করেছে।

সর্বোচ্চ ভ্যাট আদায় করেছে লার্জ ট্যাক্সপেয়ার ইউনিট (এলটিইউ)। এই ইউনিট ৫০ হাজার কোটি টাকা এবং এলটিইউ (আয়কর) বিভাগ প্রায় ২৫ হাজার কোটি টাকা আদায় করেছে।

এনবিআরের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, ব্যবসায়ীরা ১৫ জুলাইয়ের মধ্যে প্রায় ২০ হাজার কোটি টাকার ভ্যাট রিটার্ন জমা দেবেন। এছাড়া বেশ কিছু রাষ্ট্রায়ত্ত প্রতিষ্ঠানের কাছে কয়েক হাজার কোটি টাকার কর পাওনা রয়েছে এনবিআরেরর শুল্ক বিভাগের।

রাজস্ব কর্মকর্তারা আশা করছেন, রাষ্ট্রায়ত্ত প্রতিষ্ঠান থেকে বকেয়া কর পাওয়া গেলে রাজস্ব আদায় প্রথমবারের মতো তিন লাখ কোটি টাকা ছাড়িয়ে যেতে পারে।

XS
SM
MD
LG