অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

ইউক্রেনঃ খারকিভে নিহত আরও ৫ জনসহ চাসিভ ইয়ারে মৃতের সংখ্যা ৩১ এ পৌঁছেছে


ইউক্রেনের বাখমুত জেলার চাসিভ ইয়ারে একটি চারতলা আবাসিক ভবনে রুশ ক্ষেপণাস্ত্র আঘাতের ফলে একটি ভবন আংশিকভাবে ধ্বংস হয়ে যাওয়ার পরে উদ্ধারকারীরা স্থানটি পরিষ্কার করে। ১০ জুলাই, ২০২২।

পূর্ব ইউক্রেনীয় শহর চাসিভ ইইয়ারে একটি অ্যাপার্টমেন্ট ভবনে রুশ ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় নিহতের সংখ্যা সোমবার ৩১ এ পৌঁছেছে, এমনকি যখন আরো কিছু হামলায় দ্বিতীয় বৃহত্তম শহর খারখিভে আরও ৫ জন নিহত হয়েছে।

এখন যুদ্ধের পঞ্চম মাসে, বেসামরিক মৃত্যু ইউক্রেনের জন্য যুদ্ধের মানবিক মূল্যকে বিঘ্নিত করেছে। ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেন্সকি সোমবার সন্ধ্যায় তার ভাষণে বলেছেন, অ্যাপার্টমেন্ট ভবনের ধ্বংসস্তূপ থেকে ৯ জনকে টেনে আনা হয়েছে।তবে উদ্ধারকারীদের মতে, ভেতরে আরও অনেকে আটকে আছেন।

শনিবার একটি রকেট হামলায় পাঁচতলা অ্যাপার্টমেন্ট ভবনটি ভেঙে পড়ে।

সোমবার দিনের প্রথম দিকে জেলেন্সকি কিয়েভের সাংবাদিকদের বলেন, পশ্চিমের সরকারগুলো ইউক্রেনে কোটি কোটি ডলারের অস্ত্রশস্ত্র চালান দেয়া সত্ত্বেও সাঁজোয়া বাহিনীতে রাশিয়ার “বিশাল সুবিধা” রয়েছে।

চসিভ ইয়ার ক্রামতোর্স্কের প্রায় ২০ কিলোমিটার দক্ষিণ-পূর্বে অবস্থিত একটি শহর যা রুশ বাহিনীর প্রধান লক্ষ্যবস্তু হতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে কারণ তারা ১ সপ্তাহ আগে পার্শ্ববর্তী লুহানস্ক প্রদেশে বিজয় দাবি করার পরে ডোনেটস্ক প্রদেশে আরও পশ্চিম দিকে আক্রমণ সম্প্রসারিত করে।

এটি সাম্প্রতিক সপ্তাহগুলোতে সর্বসাম্প্রতিক হামলা যেখানে ব্যাপক বেসামরিক মানুষ হতাহত হয়েছে। তবে রাশিয়ার দাবি, তারা শুধু ইউক্রেনের সামরিক অভিযানগুলোকে লক্ষ্যবস্তু করে।

মস্কো বেসামরিক নাগরিকদের লক্ষ্যবস্তু করার বিষয়টি অস্বীকার করে, তবে ইউক্রেনের অনেক নগরী, শহর এবং গ্রাম ধ্বংস্তূপে পরিণত হয়েছে। ২৪ ফেব্রুয়ারি আক্রমণের পর থেকে একটি থিয়েটার, একটি বিপণী কেন্দ্র এবং একটি রেলস্টেশনে হামলায় কয়েক ডজন বেসামরিক মানুষ নিহত হয়েছে।

এ প্রতিবেদনের কিছু তথ্য এপি এবং রয়টার্স থেকে নেয়া হয়েছে।

XS
SM
MD
LG