অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

করোনার জাল রিপোর্ট মামলায় জেকেজির সাবরিনা ও আরিফের ১১ বছরের কারাদণ্ড


করোনা পরীক্ষার ভুয়া রিপোর্ট প্রদানের অভিযোগে দায়ের করা মামলায়, মঙ্গলবার (১৯ জুলাই) বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকার একটি আদালত জেকেজি হেলথকেয়ারের চেয়ারপারসন, সিইও এবং আরও ছয়জনকে ১১ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন।

ঢাকার অতিরিক্ত মুখ্য হাকিম মো. তোফাজ্জল হোসেন এই রায় দেন।

দণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন; জেকেজির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা আরিফুল হক চৌধুরী ও তার স্ত্রী ডা. সাবরিনা শারমিন হুসাইন, শফিকুল ইসলাম, হুমায়ুন কবির ও তার স্ত্রী তানজিনা পাটোয়ারী, সাঈদ চৌধুরী, জেবুন্নেছা রিমা এবং বিপ্লব দাশ।

২০২০ সালের ১২ জুলাই এই মামলায় গ্রেপ্তার হওয়ার পর থেকে সাবরিনা কারাগারে রয়েছেন। তার স্বামী এবং অন্যদের গুলশানের জেকেজি হেলথকেয়ারের কার্যালয় থেকে গ্রেপ্তার করা হয়।

জেকেজি হেলথকেয়ার যথাযথ পরীক্ষা পদ্ধতি অনুসরণ না করেই, ২৭ হাজার করোনভাইরাস রিপোর্ট দেয়।এগুলোর বেশিরভাগই জাল বলে প্রমাণিত হয়েছে।

গত ২০ আগস্ট ঢাকার একটি আদালত, সাবরিনাসহ সাতজনের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করেন। ৩১ আগস্ট দুটি জাতীয় পরিচয়পত্র রাখার অভিযোগে সাবরিনার বিরুদ্ধে আরেকটি মামলা করে নির্বাচন কমিশন।

মামলার বিবরণী অনুযায়ী, সাবরিনা দুটি এনআইডিতে তার স্বামীর দুটি ভিন্ন নাম ব্যবহার করেছেন এবং একটিতে তার বয়স কমিয়ে দেখিয়েছেন।

XS
SM
MD
LG