অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

লিবিয়ার রাজধানীতে মিলিশিয়াদের সংঘর্ষে ৯ জন নিহত


২২শে জুলাই ত্রিপোলির আইন জারা শহরতলীতে রাতে বন্দুকযুদ্ধের পর লিবিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে যুক্ত 444 ব্রিগেড'-এর সদস্যরা অবস্থান নেয়।

লিবিয়ার রাজধানী ত্রিপোলিতে মিলিশিয়াদের মধ্যে তুমুল সংঘর্ষে বৃহস্পতি-শুক্রবার রাতে কমপক্ষে নয়জন নিহত হয়েছে বলে জানিয়েছে জরুরি বিভাগ।

জরুরি বিভাগ আল-আহরার টেলিভিশনকে সর্বশেষ হতাহতের সংখ্যা জানিয়ে বলেছে যে নিহত নয়জনের মধ্যে একটি শিশুও রয়েছে এবং বেসামরিক নাগরিকসহ আরও ২৫ জন আহত হয়েছে যাদের মধ্যে বেশ কয়েকজনের অবস্থা গুরুতর।

উত্তর আফ্রিকার ঐ দেশটিতে কয়েক মাস ধরে উত্তেজনা বাড়ছে যখন থেকে দুই প্রধানমন্ত্রী ক্ষমতার জন্য লড়াই করছেন। পূর্বাঞ্চলের সামরিক প্রধান খলিফা হাফতারের জোরপূর্বক ত্রিপোলি দখল করার একটি ধ্বংসাত্মক প্রচেষ্টা রোধ করার লক্ষ্যে স্বাক্ষরিত এক যুগান্তকারী চুক্তির দুই বছর পর নতুন করে আবার সংঘাতের আশঙ্কা তৈরি করেছে।

সংবাদ মাধ্যমের খবরে বলা হয়েছে, পূর্ব ত্রিপোলির ঘনবসতিপূর্ণ এলাকা আইন জারায় বৃহস্পতিবার গভীর রাতে আল-রাদা বাহিনী ও ত্রিপলি রেভুলিউশনারি ব্রিগেডের মধ্যে বন্দুকযুদ্ধের মধ্য দিয়ে সর্বসাম্প্রতিক এই লড়াই শুরু হয়।

পরে অন্যান্য এলাকায় তা ছড়িয়ে পড়ে। অ্যাম্বুলেন্স সার্ভিসের কর্মী ওসামা আলী আল-আহরার সংবাদ চ্যানেলকে বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের আবাসিক ভবনে ৬০ জন শিক্ষার্থী আটকে পড়েছিল। পরে তাদের উদ্ধার করা হয়।

ফরনাজ জেলায় একটি বিয়ের অনুষ্ঠানে যোগ দিতে যাওয়া শত শত নারীও আটকা পড়েছিলেন।
এএফপিকে মোখতার আল-মাহমুদি নামে এক বাসিন্দা বলেন, “আমরা বেসমেন্টে রাত কাটিয়েছি। আমাদের বাচ্চারা আতঙ্কিত হয়ে পড়েছিল ।”

ঐ লড়াই-এ সঙ্গে জড়িত উভয় গোষ্ঠীই আব্দুলহামিদ ডিবেইবার গভর্ণমেন্ট অফ ন্যাশনাল অ্যাকর্ড -এর প্রতি নামমাত্র অনুগত। গত বছর তেল সমৃদ্ধ লিবিয়ায় এক দশকেরও বেশি সময় ধরে সহিংসতার অবসান ঘটাতে জাতিসংঘ-সমর্থিত শান্তি প্রক্রিয়ার অংশ হিসাবে এই সরকারকে নিযুক্ত করা হয়েছিল।

XS
SM
MD
LG