অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

ইরান বলছে, পরমাণু চুক্তি 'দ্রুত' করতে গিয়ে তারা তাড়াহুড়ো করবে না


ইরানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র নাসের কানানি তেহরানে ১৩ জুলাই, ২০২২ তারিখে একটি সংবাদ সম্মেলন করেন।

ইরান সোমবার বলেছে, বিশ্বশক্তিগুলোর সঙ্গে তাদের ২০১৫ সালের পারমাণবিক চুক্তি পুনরুজ্জীবিত করার জন্য একটি 'দ্রুত' চুক্তিতে কোনরকম তাড়াহুড়ো করা হবে না। সেই আলোচনাটি অচলাবস্থায় আছে।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র নাসের কানানি সাপ্তাহিক সংবাদ সম্মেলনে পারমাণবিক চুক্তিতে পশ্চিমা পক্ষগুলোর কথা উল্লেখ করে বলেন, "তাদের দাবি যেন ইরান দ্রুত সিদ্ধান্ত নেয়, (চাপ প্রয়োগ করছে) সময় সীমিত এবং ইরানকে অবশ্যই দ্রুত প্রতিক্রিয়া জানাতে হবে,"

কানানি বলেন, এই ‘‘ইসলামী প্রজাতন্ত্র দেশের মৌলিক স্বার্থ একটি দ্রুত প্রক্রিয়ার সঙ্গে গিয়ে বিসর্জন দেবে না।’’

তিনি আরও বলেন, এটিকে "মানসিক চাপ এবং একতরফা প্রত্যাশার" মধ্যে রাখা হয়েছে। কিন্তু "যদি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র গঠনমূলক এবং ইতিবাচকভাবে কাজ করে, তবে একটি চুক্তি দ্রুতই হবে।"

২০১৫ সালের চুক্তিটি ইরানকে তার পারমাণবিক কর্মসূচির উপর নিষেধাজ্ঞার বিনিময়ে অন্যান্য নিষেধাজ্ঞা শিথিল করা হয়।

২০১৮ সালে তৎকালীন প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্পের অধীনে চুক্তি থেকে যুক্তরাষ্ট্রের একতরফা প্রত্যাহার এবং ওয়াশিংটন আবার অর্থনৈতিক নিষেধাজ্ঞা আরোপের ফলে ইরান তার নিজের প্রতিশ্রুতি থেকে সরে আসতে শুরু করে।

চুক্তিটি পুনরুদ্ধারের জন্য ২০২১ সালের এপ্রিলে ভিয়েনায় যে আলোচনা শুরু হয়েছিল তা তেহরান এবং ওয়াশিংটনের মধ্যে বেশ কয়েকটি বিষয়ে মতপার্থক্যের কারণে গত মার্চ থেকে স্থগিত রয়েছে।

উভয় পক্ষই পরোক্ষভাবে ইউরোপীয় ইউনিয়নের সমন্বয়কারীর মাধ্যমে আলোচনা চালিয়ে যাচ্ছে।

গত মাসে কাতার যুক্তরাষ্ট্র ও ইরানের মধ্যে পরোক্ষ একটি আলোচনার আয়োজন করেছিল, কিন্তু কোনও সাফল্য ছাড়াই দুই দিন পরে সেগুলোও বাতিল হয়ে যায়।

XS
SM
MD
LG