অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

বাইডেন ও শি জিনপিং-এর ফোনালাপ


২০২১ সালের ৬ নভেম্বর যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন ওয়াশিংটনে, এবং ২০১৯ সালের ১৩ নভেম্বর চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং ব্রাজিলের ব্রাসিলিয়াতে। ফাইল ছবি।

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন এবং চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং বৃহস্পতিবার সকালে অর্থনৈতিক বিষয়, তাইওয়ান সম্পর্কে উত্তেজনা এবং ইউক্রেনে রাশিয়ার যুদ্ধসহ বিভিন্ন বিষয়ে কথা বলেছেন বলে হোয়াইট হাউজ জানিয়েছে।

হোয়াইট হাউজ জানায়, “গণপ্রজাতন্ত্রী চীনের (পিআরসি) প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং-এর সাথে প্রেসিডেন্ট বাইডেনের ফোনালাপ সকাল ৮টা ৩৩ মিনিটে শুরু হয়েছিল।”

বুধবার ন্যাশনাল সিকিউরিটি কাউন্সিলের মুখপাত্র জন কারবি সংবাদদাতাদের বলেন, বাইডেন “প্রেসিডেন্ট শি-র সাথে যোগাযোগের লাইন যে খোলা আছে তা নিশ্চিত করতে চান, কারণ তা প্রয়োজন। এমন কিছু সমস্যা রয়েছে যেখানে আমরা চীনের সাথে সহযোগিতা করতে পারি এবং তারপর এমন সমস্যা রয়েছে যেখানে স্পষ্টতই বিরোধ এবং উত্তেজনা রয়েছে। ”

যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিনিধি পরিষদের স্পিকার ন্যান্সি পেলোসির তাইওয়ানের সম্ভাব্য সফরের প্রেক্ষিতে এই ফোনালাপ হয়। ওই সফর সম্পর্কে চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রকের মুখপাত্র ঝাও লিজিয়ান বুধবার সতর্ক করে দিয়েছিলেন যে, এটির “কঠোর প্রতিক্রিয়ার সম্মুখীন হবে।”

কারবি বলেন, যুক্তরাষ্ট্রের নীতিতে এমন কোনো পরিবর্তন হয়নি যা কূটনৈতিকভাবে বেইজিংকে স্বীকৃতি দেয়, তাইপেকে দেয় না।

কারবি বলেন, “আমি নিশ্চিত যে, কোনো না কোনোভাবে তিনি নিশ্চিত করবেন যে, এক চীন নীতির প্রতি যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিশ্রুতিতে কোনো পরিবর্তন হয়নি- একেবারেই না- এবং আমরা অভিন্ন প্রণালীর সমস্যা বা উত্তেজনার একতরফা সমাধান দেখতে চাই না,এবং অবশ্যই জোরপূর্বকভাবে নয়, এবং এটি করার কোনো কারণ নেই।”

এ প্রতিবেদনের কিছু তথ্য এপি এবং রয়টার্স থেকে নেয়া হয়েছে।

XS
SM
MD
LG