অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

টাঙ্গাইলে চলন্ত বাসে ডাকাতি ও সংঘবদ্ধ ধর্ষণ, একজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ


চলন্ত বাসে ডাকাতি ও সংঘবদ্ধ ধর্ষণের অভিযোগে গ্রেফতার এক
বাংলাদেশের টাঙ্গাইলে চলন্ত বাসে সকল যাত্রীর সর্বস্ব লুট ও এক নারীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের ঘটনায়, একজনকে গ্রেপ্তার করেছে জেলা গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)। বৃহস্পতিবার (৪ আগস্ট) ভোরে টাঙ্গাইল শহরের দেওলা এলাকা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

গ্রেপ্তার রাজা মিয়া (৩২) টাঙ্গাইলের কালিহাতী উপজেলার বল্লা গৌরস্থান এলাকায় মৃত হারুন অর রশীদের ছেলে। রাজা ডাকাতদলের সদস্য। বাসের চালক ও হেলপাড়কে জিম্মির পর, রাজা গাড়ি চালিয়েছিলেন।

বৃহস্পতিবার দুপুরে টাঙ্গাইল পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন টাঙ্গাইলের পুলিশ সুপার সরকার মোহাম্মদ কায়সার।

পুলিশ সুপার বলেন, “চলন্ত বাসে ডাকাতি ও সংঘবদ্ধ ধর্ষণের ঘটনায় ডাকাতদলের এক সদস্যকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।আটক রাজা মিয়া, টাঙ্গাইলের যাত্রীবাহী বাস ঝটিকা সার্ভিসের একজন চালক। দীর্ঘদিন যাবত তিনি টাঙ্গাইল নতুন বাস টার্মিনাল এলাকায় ভাড়া বাসায় বসবাস করে আসছিলেন। বাকিদের গ্রেপ্তারের অভিযান চলছে।”

উল্লেখ্য, গত মঙ্গলবার (২ আগস্ট) দিবাগত রাতে, কুষ্টিয়া থেকে ঈগল পরিবহনের একটি বাস অন্তত ২৪ জন যাত্রী নিয়ে চট্টগ্রামের উদ্দেশে রওনা হয়। রাত ১১টার দিকে সিরাজগঞ্জের একটি হোটেলে খাবারের জন্য বিরতি দেয়া হয়। সেখান থেকে যাত্রা করে ৫ মিনিট যাওয়ার পর, মূল সড়ক থেকে প্রথমে তিনজন যাত্রী বাসটিতে ওঠেন। কিছু দূর যাওয়ার পর আরও চারজন যাত্রী ওঠে। নির্ধারিত স্টেশন ছাড়া কিছু দূর যাওয়ার পর আরও তিনজন যাত্রী সেজে বাসে ওঠে।

আনুমানিক রাত ১২টার দিকে যাত্রীরা ঘুমিয়ে গেলে, ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কের টাঙ্গাইলের নাটিয়াপাড়া এলাকা পৌঁছালে ডাকাত দলের সদস্যরা হঠাৎ করে অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে পুরোবাসের নিয়ন্ত্রণ নেয়। টাঙ্গাইলের গোড়াই এলাকায় থেকে বাসটিকে ঘুরিয়ে ডাকাত দলের সদস্যরা কালিহাতী হয়ে মধুপুরে আসে। এরই মধ্যে ডাকাত দলের সদস্যরা সকল যাত্রীর হাত-মুখ ও চোখ বেঁধে জিম্মি করেন। এরপর যাত্রীদের কাছে থাকা মোবাইল, টাকা, স্বর্ণালংকার লুট করে নেয়।

পরে ডাকাত দলের সদস্যরা গাড়িতে থাকা এক নারীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ করে।

রাত সাড়ে ৩টার দিকে টাঙ্গাইলের মধুপুর উপজেলার রক্তিপাড়া জামে মসজিদের পাশে বালুর ঢিবির কাছে বাসের গতি থামিয়ে পালিয়ে যায় তারা।

এ ব্যাপারে যাত্রীবাহী বাসে ডাকাতি ও ধর্ষণ মামলা করা হয়। বাসযাত্রী, কুষ্টিয়ার বাসিন্দা হেকমত বাদী হয়ে মধুপুর থানায় মামলা করেন। ভুক্তভোগী ঐ নারীকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে রাখা হয়েছে।

XS
SM
MD
LG