অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

জাতিসংঘের বিশেষজ্ঞরা বলছেন রুয়ান্ডা পূর্ব কঙ্গোতে সামরিক হস্তক্ষেপ করেছে


কঙ্গোলিজ সৈন্যরা সন্দেহভাজন এম টোয়েন্টি থ্রি বিদ্রোহী যোদ্ধাদের পাহারা দিচ্ছে। ৫ নভেম্বর, ২০১৩।

ইউনাইটেড নেশনস গ্রুপ অফ এক্সপার্টস বলেছে যে তাদের কাছে "দৃঢ় প্রমাণ" রয়েছে যে রুয়ান্ডার সেনারা ২০২১ সালের নভেম্বর থেকে ২০২২ সালের জুলাইয়ের মধ্যে গণতান্ত্রিক প্রজাতন্ত্র কঙ্গোর পূর্বাঞ্চলে সামরিক অভিযান পরিচালনা করেছে এবং রুয়ান্ডা সেখানে এম টোয়েন্টি থ্রি বিদ্রোহী গোষ্ঠীর অগ্রগতিকে সমর্থন করেছে।

বৃহস্পতিবার রয়টার্সের একটি গোপনীয় প্রতিবেদনে এই ফলাফলগুলি রয়েছে। রুয়ান্ডা কঙ্গো সরকারের অভিযোগ অস্বীকার করেছে যে তারা এম টোয়েন্টি থ্রি সমর্থন করে এবং সে দেশে সেনা পাঠিয়েছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, "গ্রুপটি রুটশুরু অঞ্চলে রুয়ান্ডার প্রতিরক্ষা বাহিনীর (আরডিএফ) সদস্যদের উপস্থিতি এবং সামরিক অভিযানের দৃঢ় প্রমাণ সংগ্রহ করেছে।"

এতে বলা হয়েছে, আরডিএফ সদস্যরা এম টোয়েন্টি থ্রি যোদ্ধাদের সাথে কঙ্গোর সেনাবাহিনী এবং কঙ্গোর সশস্ত্র গোষ্ঠীর বিরুদ্ধে যৌথ আক্রমণ পরিচালনা করেছিল এবং বিদ্রোহীদের অস্ত্র, গোলাবারুদ এবং ইউনিফর্ম সরবরাহ করেছিল।

মে মাস থেকে এম টোয়েন্টি থ্রি বিদ্রোহী গোষ্ঠীটি এক দশকের মধ্যে সবচেয়ে মারাত্মক আক্রমণ চালিয়েছে, কয়েক ডজন বেসামরিক লোককে হত্যা করেছে, কয়েক হাজার মানুষকে বাস্তুচ্যুত করেছে এবং রুয়ান্ডা ও উগান্ডার সীমান্তের কাছাকাছি শহরগুলি দখল করেছে।

রুয়ান্ডার প্রেসিডেন্ট পল কাগামে দ্বারা ভাগ করা জাতিগোষ্ঠী হুতু-নেতৃত্বাধীন মিলিশিয়াদের বিরুদ্ধে কঙ্গোলিজ তুতসিদের স্বার্থ করা হবে এই দাবি করে ২০১২ সালে এম টোয়েন্টি থ্রি গঠিত হয়েছিল।

XS
SM
MD
LG