অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

বাগেরহাটে কালী মন্দিরে প্রতিমা ভাঙচুর, তিন যুবক আটক


বাংলাদেশের খুলনায় আর্য ধর্মসভা কালী মন্দিরের অভ্যন্তরীণ একটি অংশ। (ফাইল ছবি)

বাংলাদেশের বাগেরহাট জেলার মোংলায় একটি সর্বজনীন কালী মন্দিরে প্রতিমা ভাঙচুরের ঘটনা ঘটেছে। শনিবার (৬ আগস্ট) রাতে উপজেলার ‘কানাইনগর সর্বজনীন কালী মন্দির’-এ এই প্রতিমা ভাঙচুর করা হয়। এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে, তিন যুবককে আটক করেছে পুলিশ।

আটক যুবকরা হলেন; মো. রাহাত চৌধুরী (২০), মো. নয়ন মুন্সি (২৪) এবং মো. আসিফ খান (২২)। এদের সবার বাড়ি কানাইনগর গ্রামে।

স্থানীয় বাসিন্দা শান্তনা রাণী বিশ্বাস জানান, তিনি প্রতিদিনের মতো রবিবার (৭ আগস্ট) ভোরে ঘুম থেকে উঠে মন্দিরে গিয়ে দেখেন ভাঙা প্রতিমা মেঝেতে পড়ে আছে। পরে তিনি প্রতিবেশিদের বিষয়টি জানান।

মন্দির কমিটির সভাপতি দেবাশীষ বিশ্বাস জানান, খবর পেয়ে মন্দিরে গিয়ে ভাঙা প্রতিমা দেখতে পান তিনি।

দেবাশীষ বিশ্বাস বলেন, “মন্দিরের সামনে একটি মাঠ রয়েছে। সম্প্রতি বালু দিয়ে ঐ মাঠ ভরাট করা হয়েছে। শনিবার বিকালে ১৫ থেকে ১৬ জন যুবক ঐ মাঠে ফুটবল খেলছিল। এসময় আমি তাদের মাঠে খেলা করতে নিষেধ করি। এতে ঐ যুবকরা আমার ওপর ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠে। তাদের সঙ্গে বাকবিতণ্ডার এক পর্যায়ে হট্টগোল তৈরি হয়। তখন ঐ যুবকরা আমাকে দেখে নেয়ার হুমকি দিয়ে চলে যায়।”

দেবাশীষের ধারণা, মাঠে ফুটবল খেলা নিয়ে যাদের সঙ্গে তার বাক-বিতণ্ডা হয়েছে, তারাই মন্দিরের প্রতিমা ভাঙচুর করতে পারে।

খবর পেয়ে, সহকারি পুলিশ সুপার আসিফ ইকবাল ঐ মন্দিরে যান এবং মন্দির কমিটিসহ স্থানীয় বাসিন্দাদের সঙ্গে কথা বলেন। মন্দিরে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

মোংলা উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি পীযুষ মজুমদার জানান, এলাকার হিন্দু-মুসলিম মিলেমিশে বসবাস করে। সকলের মধ্যে মধ্যে সম্প্রীতির সম্পর্ক রয়েছে। যারা মন্দিরের প্রতিমা ভাঙচুর করেছে, তাদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানান পীযুষ মজুমদার।

মোংলা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ মনিরুল ইসলাম জানান, “শনিবার রাতের কোন এক সময়ে সর্বজনীন এই মন্দিরের প্রতিমা ভাঙচুর করা হয়েছে। ভাঙচুরের বিষয়টি পুলিশ গভীর ভাবে তদন্ত করছে।”

ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা বলেন, “ফুটবল খেলাকে কেন্দ্র করে মন্দিরের প্রতিমা ভাঙচুর করা হয়েছে কি-না, তা পুলিশ খতিয়ে দেখছে। ফুটবল খেলা নিয়ে যাদের সঙ্গে মন্দির কমিটির বাক-বিতণ্ডা হয়েছে, তাদের মধ্যে তিন যুবককে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।”

XS
SM
MD
LG