অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

বঙ্গবন্ধু সৌভাগ্যবান, তিনি বঙ্গমাতাকে জীবনসঙ্গিনী হিসেবে পেয়েছিলেন: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা


বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এবং বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন্নেছা মুজিব। (ফাইল ছবি)
বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এবং বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন্নেছা মুজিব। (ফাইল ছবি)

বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, “বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সৌভাগ্যবান; তিনি বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন্নেছা মুজিবকে তার জীবনসঙ্গী হিসেবে পেয়েছিলেন। যিনি তাকে দেশের স্বাধীনতা ও জনগণের কল্যাণে কাজ করতে অপরিসীম শক্তি জুগিয়েছিলেন।”

সোমবার (৮ আগস্ট) বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন্নেছা মুজিবের জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে এ কথা বলেন শেখ হাসিনা।তিনি বলেন, “এটা আমার বাবার জন্য সৌভাগ্যের বিষয় যে, তিনি আমার মাকে তার পাশে জীবনসঙ্গী হিসেবে পেয়েছিলেন।”

এই অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পাঁচ বিজেতার মধ্যে বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন্নেছা মুজিব পদক-২০২২ বিতরণ করেন।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, “আমার বাবার পক্ষে দেশের স্বাধীনতা অর্জনের সংগ্রামে পুরোপুরি নিবেদিত হওয়া সহজ ছিল, কারণ তিনি তাঁর পাশে অসাধারণ জীবনসঙ্গী ও পিতামাতা পেয়েছিলেন। মায়ের মতো জীবনসঙ্গী না পেলে বঙ্গবন্ধুর জন্য দেশের জন্য কাজ করা এবং রাজনীতিতে পূর্ণ মনোযোগ দেয়া খুবই কঠিন হতো।”

শেখ হাসিনা বলেন, “যদি তিনি (বঙ্গমাতা) তার স্বামীকে বিভিন্ন দাবির জন্য সব সময় চাপ দিতেন, তাহলে আমার বাবার জন্য এটা (রাজনীতিতে মনোযোগ দেয়া) কঠিন কাজ হতো। আমার মা কখনোই বাবার কাছ থেকে কিছু পাওয়ার জন্য জোরাজুরি করেননি।”

প্রধানমন্ত্রী বলেন “যে কোনও সমস্যাকে সাহসের সঙ্গে মোকাবেলা করার এবং কঠিন পরিস্থিতির সঙ্গে মানিয়ে নেয়ার অস্বাভাবিক মানসিক শক্তি ছিল আমার মায়ের। মা আমাদেরও সেভাবেই বড় করেছেন এবং তার সন্তানদের সাহসের সঙ্গে প্রতিকূল পরিস্থিতি মোকাবেলা করতে শিখিয়েছেন।”

শেখ হাসিনা বলেন, “আমার মা আত্মবিশ্বাসী ছিলেন, যে দেশ স্বাধীন হবে এবং আমার মায়ের এই প্রত্যয় আমার বাবার জন্য খুব সহায়ক ছিল। মা শেষ নিঃশ্বাস পর্যন্ত দেশের জন্য সর্বস্ব দিয়ে গেছেন। ১৫ আগস্ট তিনি তার জন্য জীবন ভিক্ষা চাননি; বরং তিনি তার জীবন উৎসর্গ করেছেন।”

শেখ হাসিনা নারীদেরকে বঙ্গমাতার আদর্শে উদ্বুদ্ধ হতে আহবান জানান। বলেন, “ তার আদর্শ আমাদের শিক্ষা দেয়, ভোগ-বিলাস কারও জীবনের একমাত্র উদ্দেশ্য হওয়া উচিত নয়। আমি দেশের নারীদের ত্যাগের চেতনা ধারণ করে জনগণের কল্যাণে কাজ করার আহ্বান জানাব।”

বঙ্গমাতার জীবন ও আত্মত্যাগের ওপর মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন বিশিষ্ট লেখক আনোয়ারা সৈয়দ হক।

XS
SM
MD
LG