অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

লঞ্চের ভাড়া বাড়াতে ওয়ার্কিং কমিটি গঠন করা হয়েছে: নৌপরিবহন সচিব


বাংলাদেশে লঞ্চের ভাড়া বাড়াতে ওয়ার্কিং কমিটি গঠন করা হয়েছে।

বাংলাদেশের নৌ-পরিবহন মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. মোস্তফা কামাল বলেছেন, “ডিজেলের দাম ৪১ শতাংশ বেড়ে যাওয়ায়, লঞ্চের ভাড়া বাড়ানোর আবেদন জানিয়েছে মালিকপক্ষ। তাদের প্রস্তাবের বিষয়ে বৈঠকে বসেছিল নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়। বৈঠকে ভাড়া বাড়ানোর কোন সিদ্ধান্ত হয়নি। যৌক্তিক পর্যায়ে ভাড়া বাড়াতে ওয়ার্কিং কমিটি গঠন করা হয়েছে।”

সোমবার (৮ আগস্ট) নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে লঞ্চ মালিকদের সঙ্গে বৈঠক শেষে তিনি এ তথ্য জানান। সচিব বলেন,“ওয়ার্কিং কমিটি বৈঠকে বসবেন। যেভাবে পূর্বে মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছিল, একইভাবে পুনঃনির্ধারণ করা হবে। আমরা কয়েকটি বিষয় বিবেচনায় নিচ্ছি। শুধু সদরঘাট নয়, সারা বাংলাদেশকে চিন্তা করে সিদ্ধান্ত নিতে হবে।”

সচিব মোস্তফা কামাল বলেন, “আমাদের কাছে আজকের মধ্যেই তারা সুপারিশ দেবেন। সরকারের বিবেচনার জন্য তা উপস্থাপন করব। আশা করছি আগামীকাল অথবা ১০ আগস্টের মধ্যে এ বিষয়ে আমরা গেজেট প্রকাশ করতে পারবো।”

বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌ-চলাচল যাত্রী পরিবহন সংস্থার পক্ষ থেকে লঞ্চের ভাড়া বাড়ানোর বিষয়ে যে প্রস্তাব এসেছে, সে হার বেশি বলে মনে করেন সচিব। তিনি বলেন, “বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌ-চলাচল যাত্রী পরিবহন সংস্থার পক্ষ থেকে প্রস্তাব হচ্ছে প্রতি কিলোমিটার যেখানে আগে দুই টাকা ৩০ পয়সা ছিল, সেটা বৃদ্ধি করে চার টাকা ৬০ পয়সা করা। আর, যেটা দুই টাকা ছিল, সেটা বৃদ্ধি করে চার টাকা করা। মূল্যবৃদ্ধি বা পুনঃনির্ধারণ প্রয়োজন আছে, কিন্তু এটা আমাদের কাছে একটু বেশি মনে হচ্ছে। এ কারণে আমরা একটি ওয়ার্কিং কমিটি করে দিয়েছি।”

লঞ্চ মালিকদের যে দাবি ছিল সেটা যৌক্তিক মনে করছেন কি-না? এ প্রশ্নের জবাবে সচিব বলেন, “তারা প্রস্তাব দিয়েছে শতভাগ বৃদ্ধির এবং সেখানে তারা আরও কিছু বিষয় নিয়ে এসেছে। যেমন, মবিল বা অন্যান্য সরঞ্জাম। আমার মনে হচ্ছে সেগুলো তো নতুন করে বাড়েনি। সেটা আমাদের জন্য মূল বিবেচ্য বিষয় নয়। তবে এটা পুনঃনির্ধারণ হবে, অবশ্যই যুক্তিসঙ্গত হবে। তারা যা দাবি করেছেন, তা অবশ্যই বেশি।”

গেজেট প্রকাশ পাওয়ার পর থেকে নতুন ভাড়া কার্যকর হবে বলেও জানান নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের সচিব।

উল্লেখ্য, ডিজেলের দাম ২৩ শতাংশ বাড়ানোর পর, গত বছরের নভেম্বরে লঞ্চের ভাড়া ৩৫ শতাংশের বেশি বাড়ানো হয়েছিল। নভেম্বরের আগে লঞ্চে ১০০ কিলোমিটার মধ্যে দূরত্বে প্রতি কিলোমিটারে ভাড়া ছিল এক টাকা ৭০ পয়সা। তখন তা থেকে বাড়িয়ে দুই টাকা ৩০ পয়সা করা হয়েছিল।

১০০ কিলোমিটারের বেশি দূরত্বে প্রতি কিলোমিটারের ভাড়া নভেম্বরের আগে ছিল এক টাকা ৪০ পয়সা। তা থেকে বাড়িয়ে করা হয়েছিল দুই টাকা। আর লঞ্চের সর্বনিম্ন ভাড়া ১৮ টাকা থেকে বাড়িয়ে ২৫ টাকা করা হয় নভেম্বরে।

XS
SM
MD
LG