অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

তাইওয়ানকে অধিগ্রহণের জন্য আবারও সামরিক হুমকি চীনের


ফা্ইল ছবি চীনের সিনহুয়া নিউজ এজেন্সির এই ছবিতে পিপলস লিবারেশন আর্মির একজন সদস্য তাইওয়ানের ফ্রিগেট ল্যান ইয়াংকে সামরিক মহড়ার সময় দূরবীনের মধ্য দিয়ে দেখছেন। ৫ আগস্ট, ২০২২ । (লিন জিয়ান/সিনহুয়া এপি-র মাধ্যমে পাওয়া)

চীন বুধবার স্বায়ত্তশাসিত তাইওয়ানকে তার নিয়ন্ত্রণে আনতে সামরিক শক্তি ব্যবহার করার হুমকি পুনর্ব্যক্ত করেছে। এই সামরিক মহড়া কয়েক বছরের মধ্যে উভয় পক্ষের মধ্যে উত্তেজনাকে সর্বোচ্চ পর্যায়ে নিয়ে গেছে।

মন্ত্রিপরিষদের তাইওয়ান বিষয়ক কার্যালয় এবং এর সংবাদ বিভাগের জারি করা বিবৃ্তিতে জানা যায় যে প্রায় এক সপ্তাহ ধরে চীনা যুদ্ধজাহাজ এবং বিমান বাহিনীর বিমানগুলি তাইওয়ানের জলসীমা ও আকাশসীমায় ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ এবং অনুপ্রবেশ চালিয়ে যাচ্ছে।

এই পদক্ষেপগুলি বিশ্বব্যাপী সাপ্লাই চেইনগুলির জন্য গুরুত্বপূর্ণ অঞ্চলটিতে ফ্লাইট এবং শিপিংকে ব্যাহত করেছে এবং মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, জাপান এবং অন্যান্যরা এর তীব্র নিন্দা জানিয়েছে।

চীনা বিবৃতিতে বলা হয়, বেইজিং “সর্বোচ্চ আন্তরিকতার সঙ্গে কাজ করবে এবং শান্তিপূর্ণ পুনঃএকত্রীকরণের জন্য সর্বোচ্চ প্রচেষ্টা চালিয়ে যাবে। কিন্তু আমরা শক্তি প্রয়োগ বন্ধ করব না। বাহ্যিক হস্তক্ষেপ এবং সমস্ত বিচ্ছিন্নতাবাদী কার্যকলাপের বিপক্ষে আমরা সমস্ত প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করার অধিকার রাখি ।”

চীন বলছে, গত সপ্তাহে যুক্তরাষ্ট্রের হাউজ স্পিকার ন্যান্সি পেলোসির তাইওয়ান সফরের কারণে এই হুমকিমূলক পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে। কিন্তু তাইওয়ান বলছে, এ ধরনের সফর নিত্যনৈমিত্তিক এবং চীন তা কেবল তাদের হুমকি বৃদ্ধি করার অজুহাত হিসেবে ব্যবহার করছে।

তাইওয়ানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মঙ্গলবার সতর্ক করে দিয়ে বলেন, যেসময় তাইপেই নিজেদের রক্ষা করার জন্য অনুশীলন পরিচালনা করে ঠিক তখনই চীনের সামরিক মহড়া পশ্চিম প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলের বড় অংশনিয়ন্ত্রণের উচ্চাকাঙ্ক্ষাকেই প্রতিফলিত করে।

তাইপের প্রধান পৃষ্ঠপোষক যুক্তরাষ্ট্রও বেইজিংয়ের প্রতি শ্রদ্ধা রেখে তাইওয়ানের সাথে ওয়াশিংটনের কোনও আনুষ্ঠানিক কূটনৈতিক সম্পর্ক নেই বলে জানায়।

চীনের মহড়ার প্রতিক্রিয়ায়, তাইওয়ান তার বাহিনীকে সতর্ক করে দিয়েছে। তবে এখন পর্যন্ত সক্রিয় পাল্টা ব্যবস্থা গ্রহণ থেকে বিরত রয়েছে।

XS
SM
MD
LG