অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

নিউইয়র্কে হামলার শিকার হলেন সালমান রুশদি


সালমান রুশদি

নিউইয়র্কের পশ্চিমাঞ্চলে বক্তৃতা দেওয়ার ঠিক আগে শুক্রবার লেখক সালমান রুশদির উপর হামলা করা হয়েছে। রুশদি তার লেখনীর জন্য ১৯৮০’র দশকে ইরান থেকে প্রাণনাশের হুমকি পেয়েছিলেন।

ঘটনা প্রত্যক্ষকারী অ্যাসোসিয়েটেড প্রেসের এক সাংবাদিক জানান যে, চটাকোয়া ইন্সটিটিউশনে রুশদিকে পরিচয় করিয়ে দেওয়ার সময়ে এক ব্যক্তি মঞ্চে উঠে পড়ে এবং রুশদিকে ঘুষি মারা বা ছুরিকাঘাত করা আরম্ভ করে। লেখককে মাটিতে ফেলে দেওয়া হয় বা তিনি মাটিতে পড়ে যান, এবং আক্রমণকারী ব্যক্তিকে থামানো হয়।

রুশদির অবস্থা তাৎক্ষণিকভাবে জানা যায়নি।

ঘটনাস্থলে আহত অবস্থায় পড়ে আছেন সালমান রুশদি।
ঘটনাস্থলে আহত অবস্থায় পড়ে আছেন সালমান রুশদি।

“দ্য সেটানিক ভার্সেস” নামে রুশদির লেখা বইটি ইরানে ১৯৮৮ সাল থেকে নিষিদ্ধ রয়েছে। অনেক মুসলিমই বইটিকে ধর্মের অবমাননা হিসেবে বিবেচনা করেন। তার একবছর পর, ইরানের প্রয়াত নেতা আয়াতুল্লাহ রুহুল্লাহ খোমেনি এক ফতোয়া জারি করেন, যাতে রুশদিকে হত্যা করার আহ্বান জানানো হয়।

রুশদিকে মারার জন্য ৩০ লক্ষ ডলারেরও বেশি পুরস্কার ঘোষণা করা হয়।

ইরানের সরকার তারপর অনেকদিন ধরেই খোমেনির ফতোয়া থেকে বেশ দুরে সরে এসেছে। কিন্তু, রুশদি বিরোধী মনোভাবের রেশ পুরোপুরি কাটেনি। ২০১২ সালে, ইরানের এক আধা-সরকারি ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান পুরস্কারের অর্থ ২৮ লক্ষ ডলার থেকে বৃদ্ধি করে ৩৩ লক্ষ ডলার করে।

সে সময়ে রুশদি হুমকিটিকে পাত্তা দেননি এই বলে যে, কেউ পুরস্কারের বিষয়ে আগ্রহী এমন কোন “প্রমাণ নেই”।

সেই বছরই রুশদি ফতোয়াটির বিষয়ে “জোসেফ অ্যান্টন” নামের একটি স্মৃতিকথা প্রকাশ করেন।

XS
SM
MD
LG