অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

আমরা জনগণের দুর্ভোগ উপলব্ধি করতে পারি: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা


শেখ হাসিনা।

বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, জ্বালানি তেলের সাম্প্রতিক মূল্যবৃদ্ধি ও বিদ্যুৎ রেশনিংয়ের কারণে জনগণের দুর্ভোগ তিনি পুরোপুরি উপলব্ধি করতে পারেন। তিনি বলেন, “আমরা জনগণের দুর্ভোগ উপলব্ধি করতে পারি।”

রবিবার (১৪ আগস্ট) গণভবনে আওয়ামী লীগের আট বিভাগের সাংগঠনিক সম্পাদকের সঙ্গে মতবিনিময়কালে এ কথা বলেন আ্ওয়ামী লীগ সভানেত্রী ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

আন্তর্জাতিক বাজারে জ্বালানি তেলের দাম কমলে তার সরকার অবশ্যই মূল্য হ্রাস করবে বলে আশ্বস্ত করেন ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের প্রধান শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, “বিশ্ববাজারে যখনই জ্বালানি তেলের দাম কমবে, আমরা তখনই সমন্বয় করব। আমি সেই নির্দেশনা দিয়েছি।”

চলমান বিদ্যুৎ সংকট ও দেশব্যাপী লোডশেডিংয়ের কথা উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী। বলেন, “জনগণকে এই যন্ত্রণা আরও কিছুদিন সহ্য করতে হবে। যখন কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রগুলো উৎপাদনে যাবে, তখন আমাদের বিদ্যুতের সমস্যা দূর হয়ে যাবে।”

শেখ হাসিনা বলেন, “বিরোধী দল আন্দোলন করার সুযোগ পাচ্ছে। তাদের সেটা করতে দিন। আমিও এটা চাই।”

“সরকার বিরোধীদের আন্দোলনকালে কাউকে গ্রেপ্তার না করার জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে;” জানান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, “তারা যদি প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় ঘেরাও করতে চায়, তা করতে দিন।”

শেখ হাসিনা বলেন, “জনগণ ভালো করেই জানে, সরকার জ্বালানি তেলের দাম ও বিদ্যুতের উৎপাদন নিয়ন্ত্রণে সর্বোচ্চ আন্তরিকতার সঙ্গে চেষ্টা করেছে।”

“বিরোধীরা এই ইস্যুকে কাজে লাগানোর চেষ্টা করবে। তারা বাড়াবাড়ি করলে শেষ পর্যন্ত জনগণই বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হবে। তাদের এটা উপলব্ধি করতে হবে; বলেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

XS
SM
MD
LG