অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

মালিতে জুলাই থেকে আইভরি কোস্টের ৪৯ জন আটক সেনার বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের


আইভরি কোস্টের কর্মকর্তারা মালিতে আটক ৪৯ জন আইভরিয়ান সেনার আত্নীয়দের সাথে কথা বলছেন। ৩ আগস্ট, ২০২২। ফাইল ছবি।

মালির একজন আইনজীবী বলেছেন, আইভরি কোস্টের যে ৪৯ জন সেনাকে মালিতে জুলাই থেকে ভাড়াটে সৈন্য হওয়ার অভিযোগে আটক করে রাখা হয়েছে তাদের বিরুদ্ধে এখন রাষ্ট্রীয় নিরাপত্তা বিনষ্ট করার অভিযোগ আনা হয়েছে।

মালির কাউন্টার টেররিজম ইউনিটের আইনজীবী সেনাদের হাল নাগাদ পরিস্থিতি সম্পর্কে খবরাখবর জানিয়েছেন। আইভরি কোস্ট ১০ জুলাই তাদের আটকের পর থেকে সৈন্যদের মুক্তির দাবি করে আসছে।

রোববার প্রকাশিত এক বিবৃতিতে বিশেষ আইনজীবী সাম্বা সিসকো বলেছেন, সৈন্যদের বিরুদ্ধে “অপরাধমূলক কার্যকলাপের সাথে সংশ্লিষ্টতা,সরকারের বিরুদ্ধে আক্রমণ এবং ষড়যন্ত্র, রাষ্ট্রের বাহ্যিক নিরাপত্তা লঙ্ঘন,যুদ্ধাস্ত্রের দখল, বহন ও পরিবহন এবং এই অপরাধসমূহের সাথে জড়িত থাকার অভিযোগ আনা হয়েছে।সত্য প্রতিষ্ঠার জন্য তদন্ত করা হবে, সম্ভাব্য সকল অপরাধী, সহ-অপরাধী এবং সহযোগীদের চিহ্নিত করা হবে।”

মালিতে পৌঁছানোর পর দেশটির রাজধানী বামাকোর বিমানবন্দর থেকে আইভরির সেনাদের আটক করা হয়। তাদেরকে মালিতে একটি বিমান সংস্থার মালিকানাধীন একটি ভবন সুরক্ষিত করার জন্য পাঠানো হয়েছিল। বিমান সংস্থাটির সাথে মালিতে জাতিসংঘ মিশনের জার্মান দলের শান্তিরক্ষীদের সাথে একটি চুক্তি ছিল। যাইহোক, মালির শাসন জান্তা আইভরিয়ান সৈন্যদের “ভাড়াটে সেনা” হিসেবে বিবেচনা করে কারণ তারা সরাসরি জাতিসংঘের মিশনে নিযুক্ত নয় এবং তাই তারা “রাষ্ট্রটিকে সহায়তাকারী উপাদান” নয়।

সেনাদের গ্রেপ্তারের পর থেকে মালি ও আইভরি কোস্টের মধ্যকার উত্তেজনা বৃদ্ধি পেয়েছে।

XS
SM
MD
LG