অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

হংকং সাংবাদিক ইউনিয়নের নেতা গ্রেফতার


রনসন চ্যান। (ফাইল ছবি)

হংকংয়ের সাংবাদিক ইউনিয়নের প্রধানকে বুধবার গ্রেপ্তার করা হয়। সপ্তাহ কয়েক পর, তাঁর ওই শহর ছেড়ে একটি বিদেশী ফেলোশিপ শুরু করার কথা ছিল।

হংকং জার্নালিস্ট অ্যাসোসিয়েশনের (এইচকেজেএ) চেয়ারম্যান রনসন চ্যানকে, একজন পুলিশ অফিসারের কর্তব্যে বাধা দেওয়ার, এবং একটি প্রকাশ্য স্থানে উচ্ছৃঙ্খল আচরণের অভিযোগে গ্রেপ্তার করা হয়।

চ্যানেল সি নামে একটি অনলাইন নিউজ আউটলেটের হয়ে কাজ করছিলেন চ্যান। আউটলেটটি বলেছে, তাদের প্রবীণ এক প্রতিবেদককে পুলিশ অফিসাররা তুলে নিয়ে গেছে। পাবলিক হাউজিং ফ্ল্যাট মালিকদের একটি বৈঠক নিয়ে প্রতিবেদন তৈরি করার সময় চ্যানকে তাঁর পরিচয় পত্র দেখাতে বলেছিল পুলিশ।

পুলিশ জানিয়েছে, চ্যান নামে ৪১ বছর বয়সী এক ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। কারণ অফিসাররা তার আইডি কার্ড দেখতে চাইলে, তিনি তাদের তা দেখাতে অস্বীকার করেন এবং বারবার সতর্ক করে দেয়া সত্ত্বেও তিনি পুলিশের সাথে "অসহযোগীতা মূলক" আচরণ করেন।

অক্সফোর্ড ইউনিভার্সিটির রয়টার্স ইনস্টিটিউটে ছয় মাসের একটি ফেলোশিপ প্রোগ্রামের জন্য সেপ্টেম্বরের শেষের দিকে চ্যানের হংকং ত্যাগ করার কথা ছিল।

তিন বছর আগে হংকংয়ে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার জন্য আন্দোলন শুরু হলে, সেখানে ভিন্নমতকে দমন করতে কর্তৃপক্ষ একটি জাতীয় নিরাপত্তা আইন এবং ঔপনিবেশিক যুগের রাষ্ট্রদ্রোহের অভিযোগ এনে অনেককেই গ্রেপ্তার করে।

স্থানীয় ট্যাবলয়েড অ্যাপল ডেইলি এবং অনলাইন নিউজ প্ল্যাটফর্ম স্ট্যান্ড নিউজ - যেটির জন্য চ্যান কাজ করতেন - গত বছর সেটির নির্বাহীদের বিরুদ্ধে জাতীয় নিরাপত্তা লঙ্ঘনের অভিযোগ আনার পর, বন্ধ করতে বাধ্য করা হয়েছিল, যার ফলে সেখানে কর্মরত শত শত সাংবাদিক বেকার হয়ে পড়েন।

রিপোর্টার্স উইদাউট বর্ডারস (আরএসএফ) গত মে মাসে সংবাদ মাধ্যমের স্বাধীনতা বিষয়ক তাদের বার্ষিক র‌্যাঙ্কিং প্রকাশ করে, ওই র‌্যাঙ্কিংয়ে হংকংয়ের স্থান ৬৮ থেকে ১৪৮-এ নেমে আসে।

XS
SM
MD
LG