অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

লন্ডনের ওয়েস্টমিনস্টার অ্যাবেতে রানী এলিজাবেথের রাষ্ট্রীয় অন্ত্যেষ্টিক্রিয়া অনুষ্ঠিত


লন্ডনের ওয়েস্টমিনস্টার অ্যাবেতে, ব্রিটেনের রানী এলিজাবেথের রাষ্ট্রীয় অন্ত্যেষ্টিক্রিয়া অনুষ্ঠানে রানীর কফিনের পাশে হেঁটে যাচ্ছেন ব্রিটেনের রাজা তৃতীয় চার্লস, ক্যামিলা, রানী কনসোর্ট এবং প্রিন্সেস অ্যান। ১৯ সেপ্টেম্বর, ২০২২।

ব্রিটেনের রানী দ্বিতীয় এলিজাবেথ-এর অন্ত্যেষ্টিক্রিয়া লন্ডনের ওয়েস্টমিনস্টার অ্যাবেতে রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় অনুষ্ঠিত হয়েছে। অন্ত্যেষ্টিক্রিয়ার আয়োজনটি ছিল অত্যন্ত জমকালো এবং ঐতিহ্য ও আচার-অনুষ্ঠানে ভরা।

প্রেসিডেন্ট, প্রধানমন্ত্রী, রাজপরিবার এবং অন্যান্য বিশিষ্ট ব্যক্তিরা সোমবার ব্রিটেনের সবচেয়ে দীর্ঘ মেয়াদী রানীকে শেষ বিদায় জানাতে সমবেত হন। তাদের মধ্যে ছিলেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন এবং ফার্স্ট লেডি জিল বাইডেন। এলিজাবেথ ৭০ বছর রাজত্ব করেন এবং গত ৮ সেপ্টেম্বর স্কটল্যান্ডে মারা যান। ব্রিটেন তাঁর সুবর্ণ জয়ন্তী উদযাপন করার কয়েক মাস পর ৯৬ বছর বয়সে রানী এলিজাবেথের মৃত্যু হয়।

সোমবারের ঘন্টাব্যাপী অন্ত্যেষ্টিক্রিয়ার আগে, রয়্যাল নেভির একটি বন্দুকবাহী গাড়ি ওয়েস্টমিনস্টার হল থেকে অল্প দূরত্বে এলিজাবেথের কফিনটি নিয়ে যায়, যেখানে তার মরদেহ গত সপ্তাহ থেকে ছিল এবং যেখানে হাজার হাজার মানুষ কয়েক কিলোমিটার দীর্ঘ লাইনে দাঁড়িয়ে থেকে তাঁকে শেষ শ্রদ্ধা জানিয়েছিল। সোমবার, লোকেরা ঐতিহাসিক অনুষ্ঠানের সাক্ষী হতে অ্যাবের বাইরে রাস্তায় সারিবদ্ধ হয়।

নতুন রাজা তৃতীয় চার্লস, তার তিন ভাইবোন এবং দুই ছেলে উইলিয়াম, প্রিন্স অফ ওয়েলস এবং হ্যারি, ডিউক অফ সাসেক্স, তার পরিবারের কিছু সদস্য পদযাত্রায় ওয়েস্টমিনিস্টার অ্যাবের দিকে হাঁটেন। তারা অন্ত্যেষ্টিক্রিয়ার জন্য ভিতরে পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের সাথে যোগদান করেন।

কফিনটি রাজকীয় ভাবে সাজানো ছিল, বেগুনি মখমলের কুশনের উপরে বেজওয়েল্ড ইম্পেরিয়াল স্টেট ক্রাউন, একটি স্বর্ণ গোলক, রাজদণ্ড এবং একটি বিরাট ফুলের বিন্যাস।

ওয়েস্টমিনস্টারের ডিন ডেভিড হয়েল অন্ত্যেষ্টিক্রিয়ায় সভাপতিত্ব করেন। তিনিও রাণীর কয়েক দশকের সেবার কথা স্মরণ করে বলেন, "রাণী এবং কমনওয়েলথের প্রধান হিসাবে এত বছর ধরে তাঁর কাজের প্রতি ছিলেন অটল প্রতিশ্রুতিশীল"। তিনি আরও উল্লেখ করেন, ওয়েস্টমিনস্টার অ্যাবে ছিল ১৯৪৭ সালে প্রিন্স ফিলিপের সাথে এলিজাবেথের বিবাহ এবং ১৯৫৩ সালে তার অভিষেকের স্থান।

প্রধানমন্ত্রী লিজ ট্রাস, যিনি রানীর মৃত্যুর মাত্র দু'দিন আগে তাঁর দ্বারা নিযুক্ত হয়েছিলেন, অন্ত্যেষ্টিক্রিয়ার সময় একটি বক্তব্য পাঠ করেন, এসময় কিছু সরকারী কর্মচারীসহ প্রায় দুই হাজার লোক উপস্থিত ছিলেন।

রানীর দুই নাতি-নাতনি, প্রিন্স জর্জ এবং প্রিন্সেস শার্লটকে অন্ত্যেষ্টিক্রিয়ায় যোগ দেওয়ার অনুমতি দেওয়া হয়েছিল।

অন্ত্যেষ্টিক্রিয়া শেষে দুই মিনিট নীরবতা পালন করা হয়। পরে, রাজা তৃতীয় চার্লস এবং ব্রিটিশ রাজপরিবারের অন্যান্য সদস্যরা এলিজাবেথের কফিনের সাথে ওয়েলিংটন আর্চে যান, উইন্ডসর ক্যাসেলে সেন্ট জর্জ চ্যাপেলে অন্ত্যেষ্টিক্রিয়ার আগে সেটাই ছিল রানী এলিজাবেথের শেষ গন্তব্য।

যখন সমবেত ব্যক্তিরা জাতীয় সঙ্গীত গাচ্ছিলেন, রাজা চার্লস তখন আবেগপ্রবণ হয়ে পড়েছিলেন।

প্রায় ৬০ বছর আগে ব্রিটেনের শেষ রাষ্ট্রীয় অন্ত্যেষ্টিক্রিয়া অনুষ্ঠিত হয়েছিল প্রধানমন্ত্রী উইনস্টন চার্চিলের, যিনি দেশকে দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের বিজয়ে নেতৃত্ব দিয়েছিলেন।

XS
SM
MD
LG