অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

জাতিসংঘের অধিকার বিশেষজ্ঞ: গণহত্যার মুখে মিয়ানমারের জনগণকে রক্ষায় ব্যর্থ আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়


২০২২ সালের ১৭ সেপ্টেম্বর তোলা এই ছবিতে দেখা যাচ্ছে মিয়ানমারের সাগায়েং অঞ্চলের দেপে্েনি শহরতলীর একটি স্কুলে মিয়ানমারের হেলিকপ্টারের গুলিতে নিহত এক লোক।

বৃহস্পতিবার প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে এক মানবাধিকার বিশেষজ্ঞ মিয়ানমারের সামরিক শাসকদের দ্বারা সংঘটিত কথিত গণ-নিপীড়নের মুখে মিয়ানমারের জনগণের অধিকার রক্ষা ও তা সমুন্নত রাখতে ব্যর্থ হওয়ার জন্য আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে তীব্র তিরস্কার করেছেন।

জাতিসংঘের বিশেষ প্রতিবেদক টম অ্যান্ড্রুজ তার প্রতিবেদনে মিয়ানমারের জনগণের প্রতি সামরিক জান্তার বিরামহীন নিষ্ঠুরতার জ্বলন্ত চিত্র তুলে ধরেছেন। তিনি বলেন, গত বছর সামরিক বাহিনী একটি বিপর্যয়কর অভ্যুত্থান করার পর থেকে পরিস্থিতি খারাপ থেকে আরও খারাপের দিকে যাচ্ছে। তিনি বলেন, লক্ষ লক্ষ মানুষ তাদের মানবাধিকার লঙ্ঘন ও নিপীড়নের এক অন্তহীন আবর্তের শিকার।

অ্যান্ড্রুজ ভয়াবহ লঙ্ঘনের একটি তালিকা তুলে ধরেন যেখানে বলা হয়েছে যে ২৮ হাজারেরও বেশি বাড়িঘর ধ্বংস এবং পুরো গ্রাম পুড়িয়ে দেওয়া হয়েছে। তিনি বলেন, শত শত শিশুসহ ১২ হাজারেরও বেশি মানুষকে নির্বিচারে দুঃখজনক পরিস্থিতিতে আটক রাখা হয়েছে এবং দেশটিতে চরম অর্থনৈতিক দুর্দশা দেখা দিয়েছে।

তিনি বলেন, “মিয়ানমারের সেনাবাহিনী প্রতিদিনই যুদ্ধাপরাধ ও মানবতাবিরোধী অপরাধ করছে, যার মধ্যে রয়েছে যৌন সহিংসতা, নির্যাতন, ইচ্ছাকৃতভাবে বেসামরিক নাগরিকদের টার্গেট করা এবং হত্যা”।

মিয়ানমারের সামরিক সরকার ঐ প্রতিবেদনের বিষয়ে কোনো রকম সাড়া দেয়নি।

XS
SM
MD
LG