অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

ইরাকের কুর্দিস্তান অঞ্চলে ইরানের ক্ষেপণাস্ত্র হামলা


নির্বাসিত কোমালা দলের সদস্যরা ইরাকের সুলায়মানিয়াহ-র কাছের জারগোয়িজ গ্রামে বোমাবর্ষণের পরবর্তী অবস্থা পর্যবেক্ষণ করছেন। ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২২।

ইরাকের কুর্দিস্তানের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন যে, ঐ অঞ্চলে ইরান পরিচালিত ক্ষেপণাস্ত্র ও ড্রোন হামলায় হতাহতের সংখ্যা বেড়ে, নিহতের সংখ্যা অন্তত ৯ জন ও আহতের সংখ্যা অন্তত ৩২ জন-এ গিয়ে পৌঁছেছে।

কুর্দিস্তান ডেমোক্রেটিক পার্টি অফ ইরান নামের বিরোধী গোষ্ঠীর এক মুখপাত্র, খালিদ আজিজী ভিওএ-কে বলেন, “ইরানের শাসকগোষ্ঠী কুর্দিস্তান স্বাধীনতা বাহিনীর সদর দফতরে হামলার মাধ্যমে ইরান ও পূর্ব [ইরানের] কুর্দিস্তানে চলমান বিপ্লব থেকে মানুষজনের মনোযোগ সরানোর জন্য গুরুতরভাবে চেষ্টা করছে।”

ইরানের কর্মকর্তারা এমন দাবি নাকচ করে দিয়েছেন যে বিক্ষোভগুলো আসলে একটি বিপ্লব। তারা অভিযোগ করেছেন যে, যুক্তরাষ্ট্র ইরানকে অস্থিতিশীল করতে “দাঙ্গাকারীদের” সমর্থন যোগাচ্ছে।

ঐ অঞ্চলে অবস্থিত ভিওএ’র কুর্দি সংবাদকর্মীরা জানিয়েছেন যে, জিরগুয়েজ-এ ইরানের কুর্দি কোমালা দল এবং আলতুন কুপরি-তে কুর্দিস্তান ফ্রিডম পার্টির বিরুদ্ধে একই ধরনের হামলা পরিচালিত হয়েছে। জিরগুয়েজ, সুলায়মানিয়াহ থেকে ১৫ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত এবং আলতুন কুপরি, কিরকুক থেকে ৪০ কিলোমিটার উত্তরে অবস্থিত।

কুর্দিস্তান ফ্রিডম পার্টির প্রধান, হুসেইন ইয়াজদানপানা ভিওএ-কে বলেন যে, ১০টি বিস্ফোরক বহনকারী ড্রোন-এর মাধ্যমে তাদের ১০টি ঘাঁটির বিরুদ্ধে আলতুন কুপরি-তে পরিচালিত হামলাটি পরিচালনা করা হয়। এর ফলে তিনজন পেশমেরগা যোদ্ধা নিহত হয়েছেন।

ইয়াজদানপানা বলেন, “এখনও পর্যন্ত তিনজন পেশমেরগা যোদ্ধার শহীদ হওয়ার খবর নিশ্চিত হওয়া গিয়েছে, তবে ধ্বংসস্তুপের নিচে থেকে আরও মরদেহ উদ্ধার হলে এই সংখ্যাটি বৃদ্ধি পাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।”

XS
SM
MD
LG