অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

ভীড়ে পদদলিত হওয়ার ঘটনার আগে স্টেডিয়ামের কিছু গেট বন্ধ ছিলঃ ইন্দোনেশিয়ার ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন


ইন্দোনেশিয়ার প্রেসিডেন্ট জোকো উইডোডো এবং ইন্দোনেশিয়ার ফুটবল অ্যাসোসিয়েশনের চেয়ারম্যান মোচামাদ ইরিয়াওয়ান মালাং-এর ঐ স্টেডিয়াম পরিদর্শন করেছেন। ৫ অক্টোবর, ২০২২। (ইন্দোনেশিয়ার প্রেসিডেন্টের প্রাসাদের হ্যান্ডআউটের মাধ্যমে রয়টার্স)

ইন্দোনেশিয়ার জাতীয় ফুটবল অ্যাসোসিয়েশনের একজন মুখপাত্র বলেছেন, যে ফুটবল স্টেডিয়ামে গত সপ্তাহে পদদলিত হয়ে ১৩১ জন নিহত হয়, ম্যাচের শেষে সেখানকার কয়েকটি গেট তখনও তালাবদ্ধ ছিল।

প্রতিদ্বন্দ্বী পার্সেবায়ার কাছে আরেমা ৩-২ ব্যবধানে হারার পর ক্ষুব্ধ ভক্তরা মাঠে ছুটে গেলে দুর্ঘটনা শুরু হয়। পুলিশ জনতাকে ছত্রভঙ্গ করতে কাঁদানে গ্যাস ছোঁড়ে। ফলে আতঙ্কিত ভক্তরা মাঠ থেকে বেরোনোর গেটের দিকে ছুটতে থাকে। এর ফলে পদদলিত হয়ে এবং কাঁদানে গ্যাসে শ্বাসরুদ্ধ হয়ে অনেকে আহত হন। কর্তৃপক্ষ বলেন, কয়েক ডজন শিশুসহ অনেকে এ দুর্ঘটনায় নিহত হয়।

পুলিশ বলছে, বেশ কয়েকটি গেটের নজরদারি ক্যামেরার ফুটেজে দেখা গেছে, গেটগুলো খোলা ছিল কিন্তু স্টেডিয়াম থেকে বের হওয়ার চেষ্টা করা শত শত মানুষের জন্য সেগুলো খুবই সংকীর্ণ ছিল।

মালাং-এর পুলিশ বাহিনীর প্রধানকে অপসারণ করা হয়েছে। ৯ জন উচ্চপদস্থ কর্মকর্তাকে বরখাস্ত করা হয়েছে এবং কমপক্ষে ১৮ জন তদন্তাধীন রয়েছে।

ইন্দোনেশিয়ার জাতীয় ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন বিপর্যয়ের জন্য আরেমার প্রধান নির্বাহী এবং নিরাপত্তা সমন্বয়কের ওপর আজীবন নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে।

প্রেসিডেন্ট জোকো উইডোডো দুর্ঘটনাস্থল পরিদর্শন করতে এবং আহত দর্শকদের দেখতে বুধবার মালাং যান। আহত দর্শকেরা দুর্ঘটনাস্থলের কাছে একটি হাসপাতালে সুস্থ হয়ে উঠছেন। তিনি ইন্দোনেশিয়ার সমস্ত লিগ ফুটবল ম্যাচ স্থগিত করেছেন এবং দুর্ঘটনার তদন্তের পাশাপাশি দেশের সমস্ত ফুটবল স্টেডিয়ামে অডিটের নির্দেশ দিয়েছেন।

এ প্রতিবেদনের কিছু তথ্য এপি, রয়টার্স, এএফপি থেকে নেয়া হয়েছে।

XS
SM
MD
LG