অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

সুলতানা কামালকে নিয়ে রিজভীর বক্তব্যের প্রতিবাদ করেছেন বিশিষ্ট নাগরিকরা


সুলতানা কামালকে নিয়ে রিজভীর বক্তব্যের প্রতিবাদ করেছেন বিশিষ্ট নাগরিকরা।

বাংলাদেশের মানবাধিকার কর্মী সুলতানা কামাল ও অধ্যাপক মুনতাসীর মামুনের বিরুদ্ধে বিএনপি নেতা রুহুল কবির রিজভীর ভিত্তিহীন ও আক্রমণাত্মক বক্তব্যের নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন বাংলাদেশের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকসহ দেড় শতাধিক বুদ্ধিজীবী ও পেশাজীবী।

সুলতানা কামাল ও মুনতাসীর মামুনের বিরুদ্ধে দেওয়া বক্তব্য অবিলম্বে প্রত্যাহার করাসহ রিজভীর বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহনের দাবি জানিয়েছেন তারা।

বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক ও অন্যান্য পেশাজীবীদের নিয়ে গঠিত সংগঠন ‘ওয়ান বাংলাদেশ’-এর পক্ষ থেকে এ বিবৃতি দেওয়া হয়। বিবৃতিদাতাদের মধ্যে উচ্চ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের বেশ কয়েকজন উপ-উপাচার্য এবং অন্যান্য পেশার নেতৃস্থানীয় ব্যক্তিরা রয়েছেন।

বিবৃতি দানকারীদের মধ্যে রয়েছেন; অধ্যাপক ড. মিজানুর রহমান, হুমায়ূন কবীর, শামসুল হুদা, অধ্যাপক মিসবাহ কামাল, অধ্যাপক সাদিকা হালিম, সঞ্জীব দ্রং, রবীন্দ্র সরেন, পল্লব চাকমা, সানায়া আনসারী, অ্যাডভোকেট রানা দাশগুপ্ত, কাজল দেবনাথ, অ্যাডভোকেট মোখলেসুর রহমান বাদল, মোতাহার হোসেন আকন্দ, খুশি কবীর, জিনাত আরা হক, বেগম রোকেয়া, অ্যাডভোকেট সাইদুর রহমান, অ্যাডভোকেট আব্রাহাম লিংকন, অধ্যাপক ড. এস এম মাসুম বিল্লাহ, তাপস কুমার দাস, অধ্যাপক গোবিন্দ চন্দ্র মণ্ডল ও ব্যারিস্টার তাপস কান্তি বল।

৫ অক্টোবর এক বিক্ষোভ সমাবেশে, সুলতানা কামাল ও অধ্যাপক মুনতাসীর মামুনের বিরুদ্ধে রুহুল কবির রিজভী বলেছিলেন, “আপনারা অনেক আগেই এদেশের সার্বভৌমত্বকে অবজ্ঞা করেছেন। আপনারা কারও ক্রীতদাস হয়ে বাংলাদেশে কাজ করছেন।”

সম্প্রতি ভারতের প্রভাবশালী গণমাধ্যম ইন্ডিয়া টুডেতে প্রকাশিত ‘জোরপূর্বক গুম’ বিষয়ে জাতিসংঘের প্রতিবেদনের প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন সুলতানা কামাল। সেখানে তিনি বলেছিলেন, মানবাধিকারের বিষয়ে বিএনপির মিথ্যার ইতিহাস রয়েছে। দলটির বিরুদ্ধে ‘আইনি ব্যবস্থা নেয়ার’ আহ্বান জানান তিনি।

XS
SM
MD
LG