অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

'এবারের প্রতিবাদের ভাষা সম্পূর্ণ আলাদা': প্রতিবাদের সমর্থনে ইরানের অভিনেত্রী ফারাহানি


প্যারিসে শরৎ/শীতকালের ফ্যাশন শো-এর আগে একটি ফটো-সেশনের জন্য পোজ দিচ্ছেন ইরানী অভিনেত্রী গোলশিফতেহ ফারাহানি৷ ৬ মার্চ, ২০১৮। (ফাইল ছবি)

নির্বাসিত ইরানী অভিনেত্রী গোলশিফতেহ ফারাহানি মঙ্গলবার বলেছেন, তিনি ইরানে বিক্ষোভকারীদের প্রশংসায় পঞ্চমুখ: তিনি বলেন, "সৌন্দর্য, নারীত্ব, বাতাসে তরুণীর এলোচুল, এই সবগুলোই কেবল স্বাধীনতার প্রতীক।"

"এক্সট্রাকশন" এবং "বডি অফ লাইজ" সহ আরও অনেক সফল চলচ্চিত্রের ৩৯ বছর বয়সী এই তারকা অভিনেত্রী প্রায় এক দশকেরও বেশি সময় ধরে ফ্রান্সে নির্বাসিত জীবনযাপন করছেন।

তিনি অতীতে মূলত রাজনীতিকে এড়িয়ে গেছেন, তবে গত মাসে কঠোর ইসলামিক পোষাক নীতি ভঙ্গ করার অপরাধে গ্রেপ্তার হওয়া এক তরুণীর পুলিশি হেফাজতে মৃত্যুর ঘটনায় ইরানে বিক্ষোভ দানা বাঁধতে শুরু করলে, তাঁর মতামত পরিবর্তিত হয়।

তিনি এএফপিকে বলেন, "আমি আসলে কখনোই রাজনীতি নিয়ে কথা বলিনি, কিন্তু এই ঘটনাটি আমার মধ্যে প্রচণ্ড রকম শারীরিক উত্তেজনার পাশাপাশি এক নতুন দৃষ্টিভঙ্গির উদ্রেক করেছে।"

ফারাহানি এখন ইনস্টাগ্রামে তাঁর প্রায় এক কোটি চল্লিশ লাখ অনুসারীর কাছে ক্রমাগত আন্দোলনের খবরাদি প্রচার করে যাচ্ছেন।

তিনি বলেন, পশ্চিমের কিছু লোক ইসলামোফোবিক বলে মনে হওয়ার ভয়ে, শুরুতে বিক্ষোভকে সমর্থন করতে নার্ভাস ছিল। যুক্তরাষ্ট্রসহ অন্যান্য দেশে কিছু নারীবাদীর নীরবতায় তিনি সত্যিই খুব দুঃখ পেয়েছিলেন।

তিনি বলেন, "এটি ধর্ম নিয়ে, ইসলাম সম্পর্কে কিংবা হিজাব পরা না পরার কোনো বিষয় নয় -- এটা শুধুমাত্র আপনি এটি পরবেন কি না, তা বেছে নেওয়ার স্বাধীনতার বিষয়।"

বিগত কয়েক বছর ধরে ইরানে অনেক প্রতিবাদ আন্দোলন চলা সত্ত্বেও, তিনি মনে করেন "এবারেরটা সম্পূর্ণ ভিন্ন"। তিনি বলেন, ১৯৭৯ সালের বিপ্লব এবং ১৯৮০’র দশকে ইরাকের সাথে যুদ্ধের কারণে তার অনেক সহকর্মী ভীত এবং আতঙ্কিত ছিলেন, কিন্তু আজ রাস্তায় তরুণসমাজ সেই ভীতি আর বয়ে বেড়ায় না।

তিনি বলেন, "আমরা সেসময় হয়তো ভয় পেয়েছিলাম, কিন্তু এখন তারা মোটেও ভীত নয়, তারা লজ্জিত নয়।" তিনি ছোটবেলায় মাথা ন্যাড়া করতেন নিজেকে ছেলে হিসেবে প্রকাশ করতে । ফারাহানি বলেন, "আমি ইরানে স্বাধীনভাবে চলতে শিখেছি শুধুমাত্র আমার নারীত্বকে বিসর্জন দেবার জন্য। আমি জানতাম, একজন নারী হয়ে জন্মানোটা সব ক্ষেত্রেই বাধা হয়ে দাঁড়াবে।"

"এই প্রজন্ম তাদের চুল লম্বা রাখতে চায় এবং হিজাব পরতে চায় না । তাই "যখন তাঁর দেশে ডজন ডজন লোক রাস্তায় মারা যাচ্ছে, তখন এই অভিনেত্রী তাঁর নতুন ছবির (ফরাসি মুভি "উন কমেডি রোমান্টিক") জন্য প্রচারণায় নামাটাকে অযৌক্তিক বলে মনে করেন। তবে তিনি আশা করেন, "প্রতীকি ভাবে এটিই সত্য যে, কেউ আমাদের হাসতে, নাচতে, কিংবা আনন্দিত হতে বাধা দিতে পারে না।"

XS
SM
MD
LG