অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

ইরাকে ইসলামিক স্টেটের ধ্বংস করা সৌধ থেকে পুরাকীর্তি উদ্ধার


১৯ অক্টোবর, ইরাকি এক শ্রমিক মসুল শহরে মাশকি গেটে খনন করে পাওয়া একটি পাথর খোদাই শিল্পকর্ম যা প্রাচীন অ্যাসিরীয় শহর নিনেভেহ-এর স্মৃতিস্তম্ভের দরজাগুলির একটি।

২০১৬ সালে ইসলামিক স্টেটের চরমপন্থীরা ইরাকের মসুল শহরেরপ্রাচীন সৌধ মাশকি গেট বুলডোজার দিয়ে গুড়িয়ে দিয়েছিল, তা ছিল সাংস্কৃতিক ঐতিহ্যের পরিকল্পিত ধ্বংসেরঅংশবিশেষ।

বর্তমানে যুক্তরাষ্ট্র এবং ইরাকি প্রত্নতত্ত্ববিদরা ঐ স্থানটি পুনর্নির্মাণেরকাজ করছেন।তারা ধ্বংসাবশেষের মধ্য থেকে ২৭’শ বছরের পুরানো অসাধারণ পাথর খোদাই শিল্পকর্ম আবিষ্কার করেছেন।
ইরাকি এক স্থানীয় কর্মকর্তা বুধবার বলেন, এর মধ্যে সূক্ষ্মভাবে তৈরি

আটটি মার্বেল দেওয়াল খোদাই অন্তর্ভুক্ত রয়েছে যেখানে প্রাচীন শহরনিনেভেহতে অ্যাসিরীয় রাজাদের শাসনামলের যুদ্ধের দৃশ্যগুলি দেখানো হয়েছে।

ইরাকি কাউন্সিল অফ এন্টিকুইটিস এন্ড হ্যারিটেজের এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ধূসর পাথরের খোদাইগুলি ৭০৫ থেকে ৬৮১ খ্রিস্টপূর্বাব্দ পর্যন্ত রাজা সেননাচিরেবের শাসনামলের।

ইরাকি পুরাকীর্তি কর্তৃপক্ষের সহযোগিতায় পরিচালিত এই পুনরুদ্ধারপ্রকল্পের লক্ষ্য হচ্ছে ক্ষতিগ্রস্ত সৌধটিকে নিনেভের ইতিহাসের একটি শিক্ষাকেন্দ্রে পরিণত করা। বিশ্বের প্রাচীনতম কয়েকটি শহর ছিল ইরাকে।

গত কয়েক দশক ধরে, ইরাক শিল্পকর্ম চোরাচালানের লক্ষ্যবস্তুতে পরিণত হয়েছে। ২০০৩ সালের আমেরিকার নেতৃত্বাধীন আগ্রাসনের পর লুন্ঠনকারীরা দেশের প্রাচীন অতীতকে ধ্বংস করে দেয়।

এরপর ২০১৪ থেকে ২০১৭ সাল পর্যন্ত ইসলামিক স্টেট বুলডোজার ও বিস্ফোরক দিয়ে প্রাক-ইসলামিক অমূল্য শিল্প সম্পদগুলো ধ্বংস করে দেয়। তারা তাদের অভিযান চালানোর অর্থায়নের জন্য ঐসব জিনিষগুলো চোরাচালান করে।

XS
SM
MD
LG