অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

রুশ-বেলারুশ যৌথ বাহিনী গঠনের সম্ভাবনা কম, বলছে ব্রিটেন


রুশ ন্যাশনাল গার্ড (রসগার্ডিয়া) এর সদস্যরা মস্কোর ক্রেমলিনের ঠিক বাইরে অবস্থিত মানেজনায়া স্কয়ার পাহারা দিচ্ছেন, ২০ অক্টোবর ২০২২।

বেলারুশের প্রেসিডেন্ট আলেকজান্ডার লুকাশেঙ্কো এর আগে এই মাসে দাবি করেছিলেন যে, বেলারুশ ও রাশিয়ার হাজার হাজার সৈন্য নিয়ে এক নতুন বাহিনী গঠন করা হবে। তবে, ব্রিটেনের প্রতিরক্ষা মন্ত্রক শুক্রবার বলে যে, লুকাশেঙ্কোর এমন দাবি বাস্তবে রূপ নেওয়ার সম্ভাবনা বেশ কম।

লুকাশেঙ্কো বলেছিলেন যে, বেলারুশের ৭০,০০০ সৈন্য ও রাশিয়ার ১৫,০০০ পর্যন্ত সৈন্য নিয়ে একটি নতুন রুশ-বেলারুশ যৌথ বাহিনী গঠন করা হবে।

টুইটারে পোস্ট করা হালনাগাদ গোয়েন্দা তথ্যে ব্রিটেনের প্রতিরক্ষা মন্ত্রক বলে যে, যদিও রুশ সৈন্যদের বেলারুশে এসে পৌঁছানো দেখানোর জন্য বেলারুশের কর্মকর্তারা একটি ভিডিও প্রকাশ করেছেন, তবুও “এমন সম্ভাবনা বেশ কম যে, রাশিয়া আসলেই বেলারুশে উল্লেখযোগ্য সংখ্যক অতিরিক্ত সৈন্য মোতায়েন করেছে।”

মন্ত্রকটি তাদের টুইটার পোস্টে রাশিয়া ও বেলারুশ, উভয়েরই সৈন্য মোতায়েন করার সক্ষমতার হিসেব কষেছে: “দাবিকৃত সংখ্যায় যুদ্ধের জন্য প্রস্তুত সেনার ব্যবস্থা করা রাশিয়ার জন্য অনেকটাই অসম্ভব: তাদের বাহিনী ইউক্রেনে জড়িয়ে রয়েছে। বরঞ্চ বড় রকমের সম্ভাবনা রয়েছে যে, জটিল অভিযান পরিচালনার ক্ষেত্রে বেলারুশের সামরিক বাহিনীর যৎসামান্যই সক্ষমতা রয়েছে।”

মন্ত্রকটি জানায় যে, রাশিয়া ও বেলারুশের যৌথ বাহিনীর ঘোষণাটি “খুব সম্ভবত রুশ-বেলারুশ একাত্মতা প্রদর্শনের এবং ইউক্রেনকে নিজেদের বাহিনী উত্তরের সীমান্ত পাহারা দিতে পাঠাতে উদ্যত করানোর একটি চেষ্টা ছিল।”

এছাড়াও শুক্রবার ইউক্রেনের খারকিভ ও ঝাপোরিঝিয়ায় ধারাবাহিক কয়েকটি বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে বলে রয়টার্স এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে। ঝাপোরিঝিয়ায় ইউক্রেনের পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্র অবস্থিত। বিস্ফোরণে ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ তাৎক্ষণিকভাবে জানা যায়নি।


XS
SM
MD
LG