অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

বাংলাদেশে আপাতত ৫০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ রপ্তানি করবে নেপাল: রাষ্ট্রদূত ঘনশ্যাম ভান্ডারি


বিদ্যুৎ সরবরাহ

প্রাথমিকভাবে নেপাল বাংলাদেশে ৪০ থেকে ৫০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ সরবরাহ করতে পারবে। বাংলাদেশে, নেপালের নব-নিযুক্ত রাষ্ট্রদূত ঘনশ্যাম ভান্ডারি বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে এ কথা জানান।

প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম সাংবাদিকদের জানান, মঙ্গলবার (২৫ অক্টোবর) গণভবনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সাক্ষাৎ কালে এ কথা জানান নেপালের রাষ্ট্রদূত। এসময় রাষ্ট্রদূত বলেন, তার দেশ বর্তমানে একটি মেগা পাওয়ার প্ল্যান্ট প্রকল্প বাস্তবায়ন করছে।

প্রেস সচিব ইহসানুল করিম রাষ্ট্রদূতকে উদ্ধৃত করে বলেন, “এই প্রকল্পটি সম্পন্ন করার পর নেপাল বাংলাদেশে আরও বেশি বিদ্যুৎ রপ্তানি করতে পারবে।”

ভারতের জিএমআর গ্রুপ-এর তৈরি করা ৯০০ মেগাওয়াট আপার কর্নালী জলবিদ্যুৎ প্রকল্প থেকে ৫০০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ কিনতে আগ্রহী বাংলাদেশ।

রাষ্ট্রদূত ঘনশ্যাম ভান্ডারী বাণিজ্যের জন্য বাংলাদেশের বাংলাবান্ধা স্থলবন্দর ব্যবহারের জন্য তার দেশের আগ্রহের কথা জানান। রাষ্ট্রদূত বলেন, “বাংলাবান্ধা বুড়িমারী স্থলবন্দরের চেয়ে কম দূরত্বে অবস্থিত।”

তিনি নেপালের প্রতি বাংলাদেশের সহযোগিতার প্রশংসা করেন। বলেন, “অনেক নেপালি শিক্ষার্থী বাংলাদেশে এসে উচ্চ শিক্ষা লাভ করে।”

শেখ হাসিনা নবনিযুক্ত রাষ্ট্রদূত-কে অভিনন্দন জানান এবং তার কাজে সহযোগিতার আশ্বাস দেন। তিনি ১৯৭১ সালে বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধের সময়, মুক্তিযোদ্ধাদের অস্ত্র ও গোলাবারুদ দিয়ে নেপালের সহায়তার কথা তুলে করেন। সেগুলোকে দেশের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ বলে উল্লেখ করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

শেখ হাসিনা এ অঞ্চলের দেশগুলোর মধ্যে, বিশেষ করে নেপাল, ভুটান ও ভারতের সঙ্গে বাংলাদেশের পারস্পরিক সম্পর্কের ওপর জোর দেন। বলেন, “বাংলাদেশ ও নেপালের মধ্যে শক্তিশালী দ্বিপক্ষীয় বাণিজ্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ।”

বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী নেপালের রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন।

XS
SM
MD
LG