অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

নিউজিল্যান্ডের ব্লগারদের ইরান ছাড়ার অনুমতি


বুধবার নিউজিল্যান্ড জানিয়েছে, কয়েক মাস ধরে আটক থাকার পর তাদের দুই নাগরিক নিরাপদে ইরান ত্যাগ করেছেন। মিডিয়া রিপোর্ট এই দু'জনকে ভ্রমণ ব্লগার ব্রিজেট ঠাকওরে এবং টপার রিচহোয়াইট হিসাবে চিহ্নিত করেছে।

নিউজিল্যান্ডের কর্মকর্তারা জোর দিয়ে বলেছেন, ইরান থেকে তাদের দুই নাগরিককে বের করে আনার জন্য কোনো চুক্তি হয়নি। নিউজিল্যান্ডের এক দম্পতির ইরানে ভ্রমণের নথি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে দেয়া হয়েছিল বলে জানা যায়।

এ বছরের শুরুর দিকে নিউজিল্যান্ডের অন্যতম ধনী ব্যক্তির ছেলে টপার রিচহোয়াইট এবং তার স্ত্রী ব্রিজেট থ্যাকওরে ওয়েলিংটন সরকারের পরামর্শ অগ্রাহ্য করে ইরান সফরে যান।

ওয়েলিংটন সরকার তার নাগরিকদের ইরান এড়িয়ে চলার আহ্বান জানিয়েছে। সম্প্রতি মাহসা আমিনির মৃত্যুর ফলে ইরানে বিক্ষোভ এবং নাগরিক অস্থিরতা দেখা দিয়েছে।

হিজাব পরার কঠোর নিয়ম উপেক্ষা করার অভিযোগে, ইরানের নৈতিকতা পুলিশের হাতে গ্রেপ্তার হওয়ার পর, গত মাসে ২২ বছর বয়সী এই তরুণী কারাগারে মারা যান।

নিউজিল্যান্ডের কর্মকর্তারা বলছেন, রিচহোয়াইট ও ঠাকওরাইয়ের গতিবিধি ইরানি কর্তৃপক্ষ দ্বারা নিয়ন্ত্রিত ছিল এবং ওয়েলিংটন সরকারের সহায়তায় তাদের কেবল চলে যাওয়ার অনুমতি দেওয়া হয়েছে।

নিউজিল্যান্ডের পররাষ্ট্রমন্ত্রী নানাইয়া মাহুতা রেডিও নিউজিল্যান্ডের চেকপয়েন্ট প্রোগ্রামে বলেন, ইরানের সঙ্গে আলোচনা ছিল জটিল ও স্পর্শকাতর।

রিচহোয়াইট ও ঠাকওরাই ইন্সটাগ্রামে এক্সপিডিশন আর্থ নামে তাদের বিশ্বব্যাপী ভ্রমণগুলি নথিভুক্ত করছিলেন।

তাদের ইরানে আটক করা হয়েছে নাকি তাদের বিরুদ্ধে কোন অভিযোগ আনা হয়েছে তা এখনও স্পষ্ট নয়। ইরানি কর্মকর্তারা অবশ্য বলেছেন, তাদের আটক বা গ্রেফতার করা হয়নি।

XS
SM
MD
LG