অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

বাইডেন ইসরাইলের প্রেসিডেন্ট হারজোগকে স্বাগত জানিয়েছেন


যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন ওয়াশিংটনের হোয়াইট হাউজের ওভাল অফিসে ইসরাইলের প্রেসিডেন্ট আইজ্যাক হারজোগের সাথে দেখা করেছেন। ২৬ অক্টোবর, ২০২২।

প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন বুধবার ইসরাইলের প্রেসিডেন্ট আইজ্যাক হারজোগের সাথে দেখা করেছেন সম্ভাব্য অভ্যন্তরীণ রাজনৈতিক পরিবর্তনের আগে বিভিন্ন আঞ্চলিক নিরাপত্তা চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করতে, কারণ যুক্তরাষ্ট্র এবং ইসরাইল উভয়ই আগামী সপ্তাহগুলোতে নির্বাচনের মুখোমুখি হবে।

হোয়াইট হাউজের মুখপাত্র কারিন জ্যঁ-পিয়ের মঙ্গলবার বলেছেন, "দুই নেতা ইরান এবং ইরানের পক্ষে যারা কাজ করছে তাদের দ্বারা সৃষ্ট হুমকি সহ পারস্পরিক উদ্বেগের বিভিন্ন আঞ্চলিক এবং বৈশ্বিক চ্যালেঞ্জের বিষয়ে সলা-পরামর্শ করবেন। তারা যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যস্থতায় ইসরাইল ও লেবাননের মধ্যে সমুদ্রসীমা বিরোধের সমাধানে একটি ঐতিহাসিক চুক্তির আসন্ন সমাপ্তির বিষয়েও আলোচনা করবেন।

তিনি বলেন, "প্রেসিডেন্ট বাইডেন মধ্যপ্রাচ্য এবং এর বাইরেও শান্তি ও স্থিতিশীলতার অগ্রগতির প্রতি তার প্রতিশ্রুতির উপর জোর দেবেন, আরব বিশ্বের সাথে ইসরাইলের আঞ্চলিক একীকরণ এবং স্বাভাবিককরণকে গভীরতর করার মাধ্যমে। তারা ফিলিস্তিন ও ইসরাইল উভয়ের জন্য স্বাধীনতা, সমৃদ্ধি এবং নিরাপত্তার সমান পদক্ষেপের প্রচারের উপায় নিয়ে আলোচনা করবেন।

এই সফরে কোনো উল্লেখযোগ্য ফলাফল আসবে বলে আশা করা হচ্ছে না তবে তা প্রতীকী অর্থে গুরুত্বপূর্ণ।

ইসরাইলের বার-ইলান ইউনিভার্সিটির রাজনৈতিক অধ্যয়ন বিভাগের প্রধান জোনাথন রেনহোল্ড বলেছেন, "আমেরিকান রাজনীতিতে সম্পর্কটিকে যে পক্ষপাতমূলক নয় সে ভাবে যাতে দেখা হয় তা নিশ্চিত করার চেষ্টা করার জন্য উভয় পক্ষেরই আগ্রহ রয়েছে। কারণ ইসরাইল ওয়াশিংটনে ক্ষমতায় যারাই থাকুক তারা সবার সাথেই ভাল সম্পর্ক চায়।আর প্রেসিডেন্ট বাইডেন বিশ্বাস করেন যে এটি ডেমোক্র্যাটিক পার্টির জন্য ভাল।

রেনহোল্ড ভয়েস অফ আমেরিকাকে বলেন, "এবং মধ্যবর্তী নির্বাচন যখন আসন্ন তখন ইসরাইল রাষ্ট্রের প্রেসিডেন্টর সাথে থাকতে দেখা যাচ্ছে,যাকে মধ্য-বামপন্থি হিসেবে মনে করা হয় সেটা খুব ভাল কারণ এটি ইসরাইলকে ডেমোক্র্যাটদের জন্য একটি বিতর্কিত ইস্যু করে না।”

আসন্ন নির্বাচন

যুক্তরাষ্ট্র নভেম্বরে মধ্যবর্তী নির্বাচনের মুখোমুখি হচ্ছে, জরিপগুলিতে অনুমান করা হচ্ছে যে প্রতিনিধি পরিষদে ডেমোক্র্যাটদের যে স্বল্প সংখ্যাগরিষ্ঠতা রয়েছে তা তারা হারাবে৷

একই মাসে, ইসরাইল তার নির্বাচন করবে - চার বছরের মধ্যে পঞ্চম - একটি শক্ত প্রতিযোগিতা যা প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী বেঞ্জামিন নেতানিয়াহুকে ইয়ার ল্যাপিডের বিরুদ্ধে দাঁড় করাবে, যিনি নাফতালি বেনেটের সরকারের পতনের পর জুলাই থেকে তত্ত্বাবধায়ক প্রধানমন্ত্রী ছিলেন।

রাইনহোল্ড বলেন, কোনো সুস্পষ্ট সংখ্যাগরিষ্ঠতার ভবিষ্যদ্বাণী না থাকায়,বাইডেন মূল্যায়ন করার চেষ্টা করবেন যে হারজোগ একটি ঐক্য সরকারের জন্য চাপ দেবেন কিনা।

তিনি আরো বলেছেন, "ইসরাইলের রাষ্ট্রপতিই সিদ্ধান্ত নেন যে সরকার গঠনের জন্য কাকে ডাকতে হবে, এবং তাই যখন কোন সুস্পষ্ট বিজয়ী যদি না থাকে তখন তার ভূমিকা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ হয়ে ওঠে। সুতরাং, কোন সন্দেহ নেই যে যুক্তরাষ্ট্র জানতে চাইবে তিনি কী ভাবছেন, এবং তিনি যা ভাবছেন তার উপর কিছু প্রভাব ফেলতে চাইবে।

প্রতি সাত বছর পর ইসরাইলি প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হলে, ইসরাইলের পরবর্তী প্রধানমন্ত্রী যিনিই হন না কেন হার্জোগ সেখানে থাকবেন।

রিনহোল্ড বলেন, "এটি যদি নেতানিয়াহু সরকার হয় এবং একটি অতি-ডানপন্থী সরকার হয়, তাহলে এটা সম্ভব যে প্রেসিডেন্ট হারজগকে এমন একটি চ্যানেল হিসাবে দেখা যেতে পারে যেটির সাথে কাজ করা সহজ।”

XS
SM
MD
LG