অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

সাংহাইয়ের একটি এলাকায় কোভিডের গণপরীক্ষা ও লকডাউনের আদেশ জারি


চীনের সাংহাই নগরের জিং’আন এলাকায় করোনাভাইরাস পরীক্ষার জন্য সারিবদ্ধভাবে অপেক্ষমান মানুষ; ২৫ অক্টোবর ২০২২।

চীনের বৃহত্তম শহর সাংহাই। শুক্রবার নগরকেন্দ্রের ইয়াংপু এলাকার ১৩লাখ বাসিন্দার জন্য কোভিডের গণপরীক্ষার আদেশ দিয়েছে নগর কর্তৃপক্ষ। আর, অন্তত পরীক্ষার ফলাফল না জানা পর্যন্ত বাসিন্দাদের নিজ বাসায় আবদ্ধ থাকতে হবে।

এই আদেশ গত গ্রীষ্মকালে নেওয়া পদক্ষেপগুলোরই পুনরাবৃত্তি। তখন ২ কোটি ৫০ লাখ মানুষের শহরটিতে দুইমাসের লকডাউন দেওয়া হয়েছিল। ঐ লকডাউনের ফলে স্থানীয় অর্থনীতি বিধ্বস্ত হয়ে পড়ে, খাদ্য সংকট দেখা দেয় এবং বাসিন্দাদের সাথে কর্তৃপক্ষের মাঝে মাঝে সংঘাত হয়।

লকডাউনের শুরুতে কর্তৃপক্ষ বলেছিল যে, এ পরিস্থিতি মাত্র কয়েকদিন স্থায়ী হবে। পরবর্তীতে তারা লকডাউনের সময়সীমা বাড়াতে থাকে।

এ সপ্তাহে ক্ষমতাসীন কমিউনিস্ট পার্টির গুরুত্বপূর্ণ কংগ্রেস শেষ হওয়ার পর, চীন তাদের কট্টরপন্থী “শূন্য-কোভিড” নীতি থেকে সরে আসবে বলে কোনই লক্ষণ দেখায়নি। ঐ কংগ্রেসে, কর্তৃত্ববাদী নেতা শি জিনপিং-কে তৃতীয় মেয়াদে আরও পাঁচ বছরের জন্য ক্ষমতায় বসানো হয় এবং প্রধান কমিটিগুলো গঠন করা হয় শি’র অনুগতদের সমন্বয়ে।

পূর্বদিকে সাংহাই থেকে শুরু করে সুদূর-পশ্চিমে তিব্বত পর্যন্ত, সারা দেশ জুড়েই কঠোর বিধিনিষেধ আরোপ করা হয়েছে। তিব্বতে লকডাউন-বিরোধী বিক্ষোভ হয়েছে বলেও খবর পাওয়া গেছে।

ঐ অঞ্চল থেকে গোপনে পাচার করে আনা মোবাইলে ধারণকৃত ফুটেজে দেখা যায় যে, তিব্বতের স্থানীয় বাসিন্দা ও হান অভিবাসী, উভয় সম্প্রদায়ের মানুষই লকডাউনের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করতে লাসা’র সড়কে সমবেত হয়েছে। সেখানে লকডাউন ৭৪ দিন ধরে স্থায়ী হয়েছিল। ধারণা করা হচ্ছে, ঐ ফুটেজটি বুধবার রাতে ধারণ করা হয়, তবে এতে কোন সহিংসতার চিহ্ন পরিলক্ষিত হয়নি।

এদিকে জনরোষ সত্ত্বেও, সাংহাইয়ের কমিউনিস্ট পার্টির সাবেক প্রধানকে দলটির সর্বময় ক্ষমতাশালী পলিটব্যুরো স্থায়ী কমিটিতে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ পদ দেওয়া হয়েছে। তিনিই শহরটিতে লকডাউন আরোপের পদক্ষেপের জন্য চূড়ান্ত দায়িত্বে ছিলেন। এমন নিয়োগের ফলে এই আভাস পাওয়া যায় যে, দক্ষতার সঙ্গে প্রশাসন পরিচালনা করে, জনসমর্থন পাওয়া যোগ্য ব্যক্তির বদলে, শি রাজনৈতিক আনুগত্যকেই বেশি প্রাধান্য দিচ্ছেন।



XS
SM
MD
LG