অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

ভারতের প্রধানমন্ত্রী সেতু ধসের স্থান পরিদর্শন করেছেন


ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ১ নভেম্বর, ২০২২ তারিখে ভারতের পশ্চিমাঞ্চলীয় রাজ্য গুজরাটের মোরবি শহরে সাসপেনশন ব্রিজ ধসের স্থানটি পরিদর্শন করছেন।

ভারতের প্রধানমন্ত্রী মঙ্গলবার পশ্চিম ভারতের যে স্থানে মেরামত করা সাসপেনশন ব্রিজ নদীতে ভেঙে পড়ে শত শত লোক পানিতে ডুবে যায়, সেই স্থানটি পরিদর্শন করেছেন। বছরের মধ্যে সবচেয়ে খারাপ একটি দুর্ঘটনায় দেশটিতে কমপক্ষে ১৩৫ জন নিহত হয়।

নরেন্দ্র মোদী গুজরাট রাজ্যের মোরবি শহরে ভেঙে পড়া সেতুটি পরিদর্শন করেন এবং উদ্ধারকারীদের সাথে কথা বলেন। তিনি হাসপাতালে আহতদের দেখতে যান। পুলিশ ও আধাসামরিক বাহিনীর জওয়ানরা এলাকাটিকে কড়া নিরাপত্তা ব্যবস্থায় রেখেছিল।

ঊনিশ শতকের শেষের দিকে ব্রিটিশ উপনিবেশবাদের সময় নির্মিত এবং রাজ্যের "শৈল্পিক এবং প্রযুক্তিগত বিস্ময়" হিসাবে চিহ্নিত পথচারী সেতুটি কেন রবিবার সন্ধ্যায় ধসে পড়েছিল এবং কে দায়ী হতে পারে তার কারণ খুঁজে বের করার চেষ্টা চলছে। মাত্র চার দিন আগে সেতুটি পুনরায় চালু করা হয়েছিল।

পুলিশের ইন্সপেক্টর জেনারেল অশোক যাদব দ্য অ্যাসোসিয়েটেড প্রেসকে বলেন, সরকারি হিসাব অনুযায়ী কেউ নিখোঁজ হননি, তবে জরুরি কর্মী ও ডুবুরিরা মঙ্গলবারও তল্লাশি চালিয়ে যাচ্ছেন।

তিনি জানান, কমপক্ষে ১৯৬ জনকে উদ্ধার করা হয়েছে এবং আহতদের মধ্যে ১০ জনের অবস্থা স্থিতিশীল রয়েছে।

শ্মশান আর কবরস্থানে মৃতদেহ সৎকার করতে করতে অনেকেই শোকপ্রকাশ করে বলেছেন তারা এমন কিছু তাদের জীবনে কখনো দেখেননি। একজন তত্ত্বাবধায়ক এত এত শিশুর দাহ করা ভীষন বেদনাদায়ক বলে মন্তব্য করেছেন।

সোমবার ঘটনার তদন্ত শুরু করেই ব্রিজের অপারেটর ওরেভা গ্রুপের ম্যানেজার-সহ ৯ জনকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

গুজরাট কর্তৃপক্ষ ওরেভার বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের করেছে সন্দেহজনক ভাবে অনিচ্ছাকৃত নরহত্যা, অপরাধমূলক নরহত্যার চেষ্টা এবং অন্যান্য লঙ্ঘনের জন্য।

মার্চ মাসে, মোরবি শহর সরকার ওরেভাকে সেতুটি রক্ষণাবেক্ষণ ও পরিচালনা করার জন্য ১৫ বছরের একটি চুক্তি করে।

সেতুটি অতীতে বেশ কয়েকবার মেরামত করা হয়েছে এবং বছরের পর বছর ধরে এর বেশিরভাগ মূল অংশ প্রতিস্থাপন করা হয়েছে। মোরবির এক কর্মকর্তা সন্দীপসিংহ জালা ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস পত্রিকাকে বলেন, “ফিটনেস সার্টিফিকেট“ না নিয়েই কোম্পানি সেতুটি পুনরায় চালু করেছে। এর সত্যতা যাচাই করা সম্ভব না হলেও , কর্মকর্তারা বলেছেন যে তারা তদন্ত করে দেখছেন। ২০১৪ সালে ভারতের প্রধানমন্ত্রী হওয়ার আগে মোদী ১২ বছর গুজরাটের শীর্ষ নির্বাচিত কর্মকর্তা ছিলেন। আগামী কয়েক মাসের মধ্যে গুজরাট রাজ্য সরকার নির্বাচন হবে বলে আশা করা হচ্ছে । বিরোধী দলগুলি এই দুর্ঘটনার পুঙ্খানুপুঙ্খ তদন্তের দাবি জানিয়েছে।

সেতুটি ভেঙে পড়া এক মাসের মধ্যে জন সমাগমে এশিয়ার তৃতীয় বড় বিপর্যয় । বাকি দুটি শনিবার দক্ষিণ কোরিয়ার সিউলের হ্যালোউইনে ভীড়ের কারণে ১৫০ জনেরও বেশি লোকের মৃত্যু আর ১ অক্টোবর, ইন্দোনেশিয়ার পুলিশ একটি ফুটবল ম্যাচে কাঁদানে গ্যাস নিক্ষেপের ফলে দর্শকরা পালানোর চেষ্টা করার সময় ১৩২ জন নিহত হবার ঘটনা। নয়াদিল্লি থেকে হোসেন খবরটি জানিয়েছেন আর চোঞ্চুই নগাশাংভা এই প্রতিবেদনে কাজ করেছেন।

XS
SM
MD
LG