অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

জাতীয় ৪ নেতার খুনিদের দেশে ফিরিয়ে আনতে চেষ্টা করছে সরকার—স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান


বাংলাদেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান

বাংলাদেশ সরকারের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেছেন, ‘জাতীয় চার নেতা হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় জড়িত যারা বিদেশে পালিয়ে আছে, তাদেরকে ফিরিয়ে আনতে সর্বাত্মক চেষ্টা অব্যাহত রেখেছে সরকার। এ ছাড়া বঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় পলাতক অভিযুক্তদেরও ফিরিয়ে আনার চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে’।

বৃহস্পতিবার (৩ নভেম্বর) রাজধানী ঢাকার চকবাজারে পুরাতন কেন্দ্রীয় কারাগারে নিহত চার নেতার প্রতি শ্রদ্ধা শেষে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে এসব কথা বলেন তিনি।

আসাদুজ্জামান খান বলেন, ‘আমরা যখন যাকে দেশে ফেরাতে পারব, তখন আইন অনুযায়ী তাদের শাস্তি ভোগ করতে হবে। এ বিষয়ে সরকার খুব সজাগ’।

আসাদুজ্জামান খান বলেন, জাতীয় চার নেতাকে নৃশংসভাবে হত্যাকাণ্ডের ঘটনা জেলখানার মতো একটি নিরাপদ জায়গায় হয়েছে। যেখানে রাষ্ট্রীয়ভাবে নিরাপত্তা দেওয়া হয়, সেখানে এ ঘটনা ঘটেছে! এমন ঘটনায় জাতি থমকে গিয়েছিল। সেই হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় আমরা বিচারের দাবি তুলেছিলাম। দীর্ঘদিন পর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ক্ষমতায় আসায় আমরা এই হত্যাকাণ্ডের বিচার দেখতে পেলাম। শুধু সে হত্যাকাণ্ড নয়, ১৫ অগাস্টের হত্যাকাণ্ডও নৃশংস ছিল’।

তিনি বলেন, ‘আমরা পৃথিবীতে অনেক রাজনৈতিক হত্যাকাণ্ড দেখেছি, কিন্তু পুরো বংশের লোককে একসঙ্গে হত্যাকাণ্ডের দৃশ্য আমরা দেখিনি। ঠিক সেই রকমই যারা সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি বঙ্গবন্ধুর অবর্তমানে দায়িত্ব নিতে পারতেন, তাদেরকেও হত্যা করা হয়’।

এক প্রশ্নের জবাবে আসাদুজ্জামান খান বলেন, ‘এইসব হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় পলাতক আসামিরা যেসব দেশে পালিয়ে আছেন, সেসব দেশের আইন অনুযায়ী তারা আমাদের সঙ্গে কথা বলেছেন। কিন্তু এসব দেশের সঙ্গে আমাদের অপরাধী বিনিময়ে চুক্তি নেই। এসব নিয়ে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় কাজ করছে’।

উল্লেখ্য, ১৯৭৫ সালের ৩ নভেম্বর ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারের অভ্যন্তরে জাতীয় চার নেতা ও মুক্তিযুদ্ধের নায়ক- সৈয়দ নজরুল ইসলাম, তাজউদ্দীন আহমদ, ক্যাপ্টেন (অব.) এম মনসুর আলী ও এ এইচ এম কামরুজ্জামানকে হত্যা করা হয়।

১৯৭১ সালের মুক্তিযুদ্ধে নেতৃত্বদানকারী এই চার নেতাই মুখ্য ভূমিকা পালন করেন। তখন ভারপ্রাপ্ত রাষ্ট্রপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন সৈয়দ নজরুল ইসলাম। সরকারের প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন তাজউদ্দীন আহমদ। অর্থমন্ত্রী হিসেবে ছিলেন এম মনসুর আলী এবং স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী এবং ত্রাণ ও পুনর্বাসনমন্ত্রী হিসেবে ছিলেন এ এইচ এম কামারুজ্জামান।

XS
SM
MD
LG