অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

নির্বাচন বাংলাদেশের নিজস্ব বিষয়, বিদেশিদের নয়—বাংলাদেশে নিযুক্ত তুরস্কের রাষ্ট্রদূত মোস্তফা ওসমান


বাংলাদেশে নিযুক্ত তুরস্কের রাষ্ট্রদূত মোস্তফা ওসমান

বাংলাদেশে নিযুক্ত তুরস্কের রাষ্ট্রদূত মোস্তফা ওসমান তুরান বলেছেন, ‘বাংলাদেশে অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচনের আয়োজন করা বিদেশিদের কোনো বিষয় নয়, এটি সম্পূর্ণভাবে বাংলাদেশের ওপর নির্ভর করে’।

বুধবার (১৬ নভেম্বর) ঢাকার একটি হোটেলে ‘মিট দ্য অ্যাম্বাসেডর’ অনুষ্ঠানে বক্তৃতাকালে তিনি এ কথা বলেন। তিনি বলেন, ‘এটা শুধু বাংলাদেশেরই সিদ্ধান্ত, বিদেশিদের নয়’।

মোস্তফা ওসমান তুরান বলেন, ‘রাজনৈতিক দলগুলোকে তাদের মতপার্থক্য মেটাতে ও সমাধান করতে হবে এবং সরকার একা প্রয়োজনীয় সবকিছু করতে পারে না’।

এক প্রশ্নের জবাবে রাষ্ট্রদূত তুরান বলেন, ‘তুরস্ক বাংলাদেশকে একটি বিশ্বস্ত উৎপাদনকেন্দ্র হিসেবে দেখে এবং বাংলাদেশ এ অঞ্চলে তাদের গুরুত্বপূর্ণ অংশীদার হতে যাচ্ছে। তুরস্ক বাংলাদেশে তাদের বাণিজ্য ও বিনিয়োগ বহুমুখী করার পরিকল্পনা করছে’।

বাংলাদেশের সঙ্গে কৌশলগত সম্পর্ক উন্নয়নে তুরস্কের পরিকল্পনার বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘পরিকল্পনাগুলো পারস্পরিক সম্মতিতে হতে হবে’।

তিনি বলেন, বাংলাদেশ ও তুরস্কের মধ্যে সম্পর্ক আস্থার ভিত্তিতে এবং তারা বাংলাদেশের সঙ্গে অংশীদারত্ব আরও সম্প্রসারিত করার অপেক্ষায় রয়েছে’।

বাংলাদেশে জ্বালানি সরবরাহে ট্রানজিট দেশ হতে পারলে তুরস্ক যথেষ্ট খুশি হবে

রাষ্ট্রদূত মোস্তফা ওসমান তুরান আরও বলেছেন, বাংলাদেশে জ্বালানি সরবরাহে ট্রানজিট দেশের ভূমিকা পালন করতে পারলে তুরস্ক যথেষ্ট খুশি হবে।

তিনি বলেন, ‘রাশিয়ান ফেডারেশন জানিয়েছে যে, তারা ইউরোপে তেল ও গ্যাস রপ্তানির জন্য তুরস্ককে একটি জ্বালানি কেন্দ্র হিসেবে দেখতে চায়। বাংলাদেশের জন্য তা যদি সম্ভব হয় ও কিছু সূত্র পাওয়া যায় এবং আমাদেরকে একটি ট্রানজিট দেশ হিসেবে ভূমিকা পালন করতে হয়, তাহলে তা করতে আমরা যথেষ্ট খুশি হব’।

তিনি বলেন, তুরস্ক জ্বালানি সম্পদের দেশ নয়। সুতরাং আমরা শক্তি সরবরাহের জন্য উৎস দেশ নই, বরং আমরা একটি ট্রানজিট দেশ।

ভারত ও চীনের সঙ্গে বাংলাদেশের সম্পর্কের বিষয়ে তাঁর মত জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘দুই দেশের সহযোগিতায় বাংলাদেশ লাভবান হচ্ছে’।

তিনি আরও বলেন, ‘এই পরিস্থিতিতে বাংলাদেশের পররাষ্ট্রনীতি খুব ভালো চলছে। এ ক্ষেত্রে কোনো পক্ষ না নেওয়া খুবই বুদ্ধিমানের কাজ। বাংলাদেশের পররাষ্ট্রনীতি এখন পর্যন্ত সফলতার সঙ্গে চলছে’।

বাংলাদেশ ও তুরস্কের মধ্যে প্রতিরক্ষা সহযোগিতা বিষয়ে এক প্রশ্নের জবাবে তিনি জানা, এটি একটি যথেষ্ট সহযোগিতামূলক অবস্থা, তবে তিনি বিস্তারিত কিছু প্রকাশ করেননি।

অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন সেন্টার ফর গভর্নেন্স স্টাডিজের (সিজিএস) নির্বাহী পরিচালক জিল্লুর রহমান।

সিজিএস ফ্রেডরিক-ইবার্ট-স্টিফটুং বাংলাদেশের সহযোগিতায় অনুষ্ঠানটি আয়োজন করে।

XS
SM
MD
LG