অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

পেপ্যর স্প্রে করে জঙ্গি ছিনতাই: ঢাকা আদালতের ৫ পুলিশ সদস্য বরখাস্ত


পেপ্যর স্প্রে করে জঙ্গি ছিনতাই

বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকার মূখ্য বিচারিক হাকিম আদালত প্রাঙ্গণ থেকে পুলিশের ওপর পেপ্যর স্প্রে করে প্রকাশক দীপন হত্যা মামলার মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত দুই জঙ্গিকে ছিনিয়ে নেওয়ার ঘটনায়, আদালতের পাঁচ পুলিশ সদস্যকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে।

সাময়িক বরখাস্ত হওয়া পুলিশ সদস্যরা হলেন; সিএমএম আদালতের হাজতখানার ইন্সপেক্টর মতিউর রহমান, হাজতখানার ইনর্চাজ (এসআই) নাহিদুর রহমান ভুইয়া, আটক ব্যক্তিদের আদালতে নেওয়ার জন্য দায়িত্বরত এটিএসআই মহিউদ্দিন, কনেস্টেবল শরিফ হাসান ও আব্দুস সাত্তার।

সোমবার (২১ নভেম্বর) ডিএমপির প্রসিকিউশন বিভাগের উপ-পুলিশ কমিশনার জসিম উদ্দিন এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, “ দণ্ডিতদের ছিনিয়ে নেওয়ার ঘটনায় পাঁচ পুলিশ সদস্যকে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করা হয়েছে। এ বিষয়ে তদন্ত চলছে। তদন্ত শেষে প্রকৃত ঘটনা উদঘাটন হবে।”

এর আগে রবিবার (২০ নভেম্বর) দুপুরে ঢাকার চিফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত প্রাঙ্গণ থেকে মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত দুই জঙ্গিকে ছিনিয়ে নিয়ে যায় তাদের সহযোগী জঙ্গিরা। এ ঘটনায় কোতোয়ালি থানায় কোর্ট পরিদর্শক জুলহাস বাদী হয়ে একটি মামলা করেন। মামলায় অজ্ঞানামা ব্যক্তিদের অভিযুক্ত করা হয়।

নাটোর আদালতে কঠোর নিরাপত্তায় আনসারুল্লাহ বাংলা টিমের আরিফ

ঢাকার সিএমএম আদালত থেকে পেপ্যর স্প্রে দিয়ে জঙ্গী ছিনিয়ের নেওয়ার পর, কড়া নিরাপত্তার মধ্য দিয়ে আনসারুল্লাহ বাংলা টিম (এবিটি)-এর সদস্য আরিফকে নাটোর আদালতে হাজির করা হয়।

সোমবার দুপুর ১২টার দিকে অনারুল্লাহ বাংলা টিমের সদস্য আরিফুর রহমান আরিফ ওরফে রাজুকে জেলা কারাগার থেকে নাটোরের অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ মোছা. কামরুন্নাহারের আদালতে হাজির করা হয়।

সেখানে পাঁচজনের সাক্ষ্য গ্রহণ শেষে, দুপুর দেড়টার দিতে তাকে পুনরায় কারাগারে নিয়ে যাওয়া হয়।

আদালতের এপিপি মাসুদ হাসান সেলিম জানান, “২০১৯ সালের ৩১ আক্টোবর নাটোর সদর উপজেলার কৈগাড়ি কৃঞ্চপুর এলাকার একটি মৎস্য খামারে অভিযান চালিয়ে আরিফুর রহমান আরিফ ওরফে রাজুকে আটক করেছিল আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা। এসময় সেখান থেকে দুটি আগ্নেয়াস্ত্র ও আনসারুল্লাহ বাংলা টিমের বই ও লিফলেট উদ্ধার করা হয়েছিল। এ মামলার মোট সাক্ষী ১৪ জন, সাতজনের সাক্ষ্য গ্রহণ শেষ হলো।”

XS
SM
MD
LG