অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

মিয়ানমারে ভিওএ-র এক সংবাদদাতাকে ২ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড দিয়েছে দেশটির আদালত


ভিওএ-র এক অনুষ্ঠানে সিথু অং মাইন্ট (বামে), মং মং সো এবং ড্য খিন মিয়ো থেট। (ভিওএ)

মিয়ানমারের এক আদালত বৃহস্পতিবার সাংবাদিক ও ভয়েস অফ আমেরিকার সংবাদদাতা সিথু অং মাইন্ট-কে দুই বছরের সশ্রম কারাদণ্ড দিয়েছে।

ইয়াঙ্গুনের ঐ আদালত সিথু অং মাইন্ট-কে মিয়ানমারের দণ্ডবিধির ধারা ৫০৫(এ) এর অধীনে দোষী সাব্যস্ত করে। ঐ ধারাটি সশস্ত্র বাহিনীকে হেয় করার সাথে সম্পর্কিত।

সিথু অং মাইন্ট আগে থেকেই তিনবছরের সশ্রম কারাদণ্ড ভোগ করছেন। অক্টোবরে এক আদালত তাকে উস্কানির দায়ে দোষী সাব্যস্ত করেছিল।

এই সাংবাদিককে প্রতিনিধিত্বকারী এক আইনজীবি ভিওএ বার্মিজ-কে বলেন যে, সর্বসাম্প্রতিক রায়টির বিরুদ্ধে আপিলের পরিকল্পনা রয়েছে সিথু অং মাইন্টের। নিরাপত্তাজনিত কারণে নাম প্রকাশ না করতে অনুরোধ জানিয়ে ঐ আইনজীবি আরও জানান যে রাষ্ট্রের মানহানির অভিযোগে তৃতীয় আরেকটি মামলার মুখোমুখি হয়ে রয়েছেন এই সাংবাদিক।

সিথু অং মাইন্ট-কে প্রথমে ইয়াঙ্গুনের বাহান টাউনশিপ থেকে ২০২১ এর আগস্টে গ্রেফতার করা হয়েছিল। সামরিক পরিষদ বলেছে যে সামরিক বাহিনী ও তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সমালোচনা করে ভিওএ এবং ফ্রন্টিয়ার সংবাদ সংস্থার মাধ্যমে প্রবন্ধ লেখার কারণে সিথু অং মাইন্ট-কে গ্রেফতার করা হয়েছিল।

এর আগের আদালতটি যখন সিথু অং মাইন্ট-কে সাজা দেয়, তখন ভিওএ’র ভারপ্রাপ্ত পরিচালক ইয়োলান্ডা লোপেজ এক বিবৃতিতে বলেছিলেন যে, সামরিক বাহিনীকে “অবশ্যই সাংবাদিকদের নির্বিচারে গ্রেফতার ও আটক রাখা এবং পরবর্তী অর্থহীন আইনী প্রক্রিয়াগুলো বন্ধ করতে হবে”।

লোপেজ বলেন, “মিয়ানমারের জনগণ এমন এক সমাজে বসবাসের অধিকার রাখে যা নির্ভুল ও বস্তুনিষ্ঠ সংবাদকে মূল্যায়ন করে।”

সিথু অং মাইন্ট রাজনীতি, বাণিজ্য ও সামাজিক বিষয়গুলো নিয়ে স্থানীয় গণমাধ্যম ও তার নিজ ব্লগে করা তার প্রতিবেদনগুলোর জন্য মিয়ানমারে সুপরিচিত।র

তিনি ২০১৪ সাল থেকে ভিওএ’র জন্য একজন সংবাদদাতা হিসেবে কাজ করছেন এবং সাপ্তাহিক সংবাদ বিশ্লেষণ দিয়ে আসছেন।

২০২১ সালের ফেব্রুয়ারিতে সামরিক অভ্যুত্থানের পর থেকে কর্তৃপক্ষ স্বতন্ত্র সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে উস্কানি এবং সামরিক বাহিনী বা রাষ্ট্রের মানহানির অভিযোগগুলোকে ব্যবহার করে আসছে।

সামরিক অভ্যুত্থানের পর থেকে ১২০ জন সাংবাদিককে গ্রেফতার করা হয়েছে। তাদের মধ্যে ৫০ জন্য এখনও হেফাজতে আটক রয়েছেন বলে, রিপোর্টিং আসিয়ান জানিয়েছে। সংস্থাটি মিয়ানমারে গ্রেফতারকৃতদের সংখ্যা পর্যবেক্ষণ করে থাকে।

মিয়ানমারের সামরিক বাহিনীর এক মুখপাত্র এর আগে ভিওএ-কে বলেছিলেন যে সামরিক জান্তা সাংবাদিকদের পেশাগত কাজের জন্য তাদেরকে গ্রেফতার করে না।

XS
SM
MD
LG